প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: ২০০৪-০৫-এ বিজেপির মোট সম্পত্তি ছিল ১২২.৯৩ কোটি। ২০১৫-১৬ তে সেই সম্পত্তির পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ৮৯৩.৮৮ কোটি। আর কংগ্রেসের সম্পত্তি এই সময়ের মধ্যে ৬৭.৩৫ কোটি থেকে বেড়ে ৭৫৮.৭৯ কোটি হয়েছে।

দিল্লির অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস (এডিআর) তাদের রিপোর্টে এই তথ্য দিয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, দেশের সাতটি জাতীয় রাজনৈতিক দল ওই আর্থিক বছরে মোট ১৫৫৯.১৭ কোটি টাকা আয়ের হিসাব দিয়েছে। বিজেপির আয় সব রাজনৈতিক দলগুলির ঘোষিত আয়ের ৬৬.৩৪ শতাংশ। কংগ্রেস তাদের আয়ের পরিমাণ ২২৫.৩৬ কোটি টাকা, যা সাতটি রাজনৈতিক দলের ঘোষিত মোট আয়ের ১৪.৪৫ শতাংশ।

একই সময়ের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পত্তি ০.২৫ কোটি থেকে বেড়ে ৪৪.৯৯ কোটি হয়েছে। রাজনৈতিক দলগুলির চলতি অর্থবর্ষের আয়কর রিটার্নে দাখিল করা হিসাবে এই তথ্য রয়েছে।

আয়ের নিরিখে সবার শেষে রয়েছে সিপিআই। তাদের আয় হয়েছে ২.০৮ কোটি টাকা, যা সব দলের মোট আয়ের মাত্র ০.১৩ শতাংশ। ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭র মধ্যে বিজেপির আয় ৫৭০.৮৬ কোটি থেকে ৮১.১৮ শতাংশ বেড়ে ১০৩৪.২৭ কোটি টাকা হয়েছে। অন্যদিকে কংগ্রেসের আয় একই সময়ে ২৬১.৫৬ কোটি থেকে ১৪ শতাংশ কমে হয়েছে ২২৫.৩৬ কোটি টাকা।

বহুজন সমাজ পার্টির (বসপা) মোট আয়ের ৭০ শতাংশ, বিজেপি ও সিপিআইয়ের সামগ্রিক আয়ের ৩১ শতাংশ ও সিপিএমের মোট আয়ের ৬ শতাংশ খরচ হয়নি ২০১৬-১৭ য়। ২০১৬-১৭য় বসপার মোট আয় ১৭৩.৫৮ কোটি টাকা, ব্যয় ৫১.৮৩ কোটি টাকা। ২০১৫-১৬য় মায়াবতীর দলের আয় ছিল ৪৭.৩৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ আয় বেড়েছে ২৬৬.৩২ শতাংশ। ৮৮.৬৩ শতাংশ আয় বেড়েছে এনসিপি-র। ২০১৫-১৬য় তাদের আয় হয়েছে ৯.১৩৭ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭য় হয়েছে ১৭.২৩৫ কোটি টাকা।

বিজেপি, কংগ্রেস দুদলই জানিয়েছে, তাদের আয়ের তিনটি মূল উত্সের মধ্য়ে আছে ডোনেশন বা অন্যান্য আর্থিক সাহায্য।