আগরতলা: ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত ভোটের নির্ধারিত দিন ২৭ শে জুলাই। এরই মধ্যে গ্রাম পঞ্চায়েতের ৮২ শতাংশ বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় শাসকদল বিজেপির দখলে চলে গিয়েছে। তাতে স্বাভাবিকভাবেই হতাশ বিরোধীরা।

প্রধান বিরোধী দল সিপিএম, কংগ্রেস ও আইপিএফটি মাত্র ১৮ শতাংশ আসনে প্রার্থী দেওয়ায় তা শাসকদল বিজেপির পক্ষে সহজ হয়েছে।

রাজ্যের নির্বাচন আধিকারিকদের তথ্য অনুসারে, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ৭,৪৮৮ জন জুলাই মাসের ১ থেকে ৮ তারিখের মধ্যে প্রার্থীপদে মনোনয়নপত্র জমা করেন। পঞ্চায়েতে মোট আসনসংখ্যা ৬৬৪৬। গ্রাম পঞ্চায়েতের ৬১১১টি আসনে ৬১২৭ জন বিজেপি প্রার্থী মনোনয়ন জমা করেছেন। কংগ্রেস প্রার্থী দিয়েছে ৭২৭ টি আসনে। সিপিএমের প্রার্থী রয়েছে ৪০৮ টই আসনে এবং আইপিএফটি রয়েছে ৪৮ টি। নির্দল প্রার্থীরা লড়ছে ১৭৪ টি আসনে।

অন্যদিকে, পঞ্চায়েত সমিতির ৪১৯টি আসনে বিজেপি মননয়ন জমা করেছে, সিপিএম ৯৩ টিতে, কংগ্রেস ৭৪ টিতে, আইপিএফটি ৯ টি আসনে এবং নির্দলরা মাত্র ৭ টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে।

ত্রিপুরার মূল বিরোধী দল সিপিএম এবং কংগ্রেসের অভিযোগ, রাজ্যজুড়ে বিজেপির অত্যাচারে বিরোধীরা মনোনয়নপত্র জমা করতে পারেনি। যদিও বিজেপি তা অস্বীকার করে ও বিরোধী দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের পাল্টা অভিযোগ তোলে।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে এই বিষয়ে সর্বদলীয় বৈঠকের দাবি জানিয়েছেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেস কমিটির সভাপতি প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মন।