তিরুঅনন্তপুরম: সীতারাম ইয়েচুরির বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করল বিজেপি৷সিপএম সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিজেপির নামে মিথ্যে কথা বলেছেন তিনি৷এই বিষয়ে কেরল পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷

সম্প্রতি দিল্লিতে সিপিএমের সদর দফতর একে গোপালন ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনের আগে সীতারাম ইয়েচুরির উপর চড়াও হয় দুই যুবক৷বিজেপি ও সংঘ পরিবার মিলিতভাবে এই হামলা করেছে বলে অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিলেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক৷ একই সঙ্গে ওইদিন রাতেই নিজের ট্যুইটারে একটি ট্যুইটও করেন সীতারাম৷ তবে এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে৷ গেরুয়া শিবিরকে কালিমালিপ্ত করতেই এই সব কথা বলেছিলেন সিপিএমের এই রাজ্য সম্পাদক৷শনিবার পুলিশের কাছে তাঁর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করল কেরল বিজেপি৷

আরও পড়ুন: কারাটের বিরোধিতায় সীতারাম ইয়েচুরি

এদিন কেরল বিজেপির সাধারণ সম্পাদক ভিভি রাজেশ জানান, সীতারাম বিজেপি ও আরএসএস সম্পর্কে ভুল তথ্য পেশ করেছেন৷ তাঁর উপর হিন্দু সেনার সদস্যরা হামলা চালালেও বিজেপি ও সংঘ পরিবাররে বিরুদ্ধে তিনি ভুল তথ্য নিজের ট্যুইটারে লিখেছিলেন৷একই সঙ্গে তাঁর আরও দাবি, বিজেপি ও সংঘ পরিবারকে কালিমালিপ্ত করতেই ট্যুইটারে ইচ্ছাকৃত এমন মন্তব্য করেছিলেন তিনি৷এই বিষয়ে কেরল পুলিশের ডিজি টিপি সেনকুমারের সঙ্গে কথা বলে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলেও এদিন জানান ভিভি রাজেশ৷

এদিকে এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত সীতারাম ইয়েচুরির তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি৷ তবে কেরল সিপিএমের তরফে জানানো হয়েছে, হিন্দু সেনার সঙ্গে বিজেপি বা আরএসএসের কি সম্পর্ক তা সকলেই জানে৷ বিজেপি পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করে আসলে নাটক করছে৷ এছাড়াও আরও বলা হয়েছে, অভিযোগ সত্যি হলে এতদিন চুপ করে বসে থাকতো না বিজেপি৷ অমিত শাহ কেরল থেকে ফিরে যেতেই হঠাৎ তাদের এখন মামলা দায়ের করার কথা মাথায় এল? হিন্দু সেনার সঙ্গে যদি বিজেপি বা আরএসএসের কোনও সম্পর্ক না থাকে তা হলে তা প্রকাশ্যে ঘোষণা করুক বিজেপি নেতৃত্ব৷ দাবি সিপএমের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।