স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস শিবিরে রয়েছেন নুসরত জাহান, মিমি চক্রবর্তীর মত বাংলা সিনেমার তারকা৷ সিপিএমের হলেও সব্যসাচী চক্রবর্তী, বাদশা মৈত্র এবং কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়ের মতো সিনে-তারকা এবং পরিচালকরা প্রচার করেছে. সেক্ষেত্রে নির্বাচনের লড়াইয়ে বাংলায় ময়দানে ভোজপুরি সিনেমার গায়ক-নায়ক পবন সিং এবং বলিউডের ‘ড্রিমগার্ল’হেমা মালিনীকে নিয়ে এসে প্রচার শুরু করতে চলেছে বিজেপি৷

শুক্রবার বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে প্রচার করতে পৌছাবেন পবন৷ সকাল সাড়ে দশটায় নদিয়া জুটমিলের সামনে তিনি প্রচার করবেন৷ রোডশো চলবে৷ দুপুর তিনটের সময় হুগলির ব্যান্ডেলের লিচুবাগান বস্তিতে প্রচার করবেন৷ বিকেল পাঁচটায় হাওড়ার জয়শোয়াল হাসপাতালের সামনে প্রচার করতে৷ শনিবার কলকাতাতে প্রচার করবেন পবন৷ এমএম ফিদা রোড, বিডন স্ট্রিটে তাকে প্রচার করতে দেখা যাবে৷ অন্যদিকে ড্রিমগার্ল হেমা মালিনী ইতিমধ্যেই মথুরা থেকে বিজেপির সাংসদ৷ তিনি শুক্রবার ঘাটালে বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের সমর্থনে প্রচার করবেন৷ এরপর তিনি শ্রীরামপুরে প্রচার করতে যাবেন৷ প্রচার করতে আসবেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের নৈহাটিতেও৷

রাজ্য বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ২৩টিরও বেশি আসনে জয়ের লক্ষে লড়াই করছে৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ রাজ্যে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছেন৷ মোদী বাংলায় ১৩টি সভা করবেন৷ কলকাতায় বিশাল রোড-শো’তেও কী মোদীকে দেখতে পাওয়া যাবে – আপাতত বিজেপি সেই চেষ্টাই করছে৷ অমিত শাহ ইতিমধ্যেই রাজ্যে ৯টি জনসভা করেছেন৷

ওই জনসভা লাগাতার চলবে বলেই মনে করছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনে পাওয়া ২৭ শতাংশ ভোট পেয়েছে বিজেপি৷ ওই ভোট বেড়ে যদি ৪৫ শতাংশ হয়, একমাত্র তাহলেই পশ্চিমবঙ্গে ২২-২৩টি লোকসভা আসন পেতে পারে বিজেপি – মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

রাজনৈতিক মহল এবং নির্বাচন বিশেষজ্ঞদের মতে বাংলায় বাড়তি ১৮ শতাংশ ভোট জোগার করা বিজেপির পক্ষে একসময় অত্যন্ত কঠিন কাজ মনে হলেও পরিস্থিতি ঘুরেছে৷ তবে এই ১৮ শতাংশের গণ্ডি টোপকে যেতে পারলে তবেই নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহের ২২-২৩টি লোকসভা আসন জয়ের স্বপ্ন সফল হবে৷

নির্বাচন বিশেষজ্ঞরা মনে করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজ্যে বিজেপির সঙ্গে উভমুখী লড়াইয়ে তৃণমূলই রয়েছে৷ মমতা পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ভোটের উৎস খুঁজে বার করতে চাইবেন৷ সেক্ষেত্রে বিজেপি বিরোধী হিসেবে ময়দানে একা লড়াই করতে চাইবেন না মুখ্যমন্ত্রী৷ শতাংশের হিসেবে, বামফ্রন্ট যদি ১৮ শতাংশ ভোট পায়, তবে কংগ্রেসও এই রাজ্যে ৮-১০ শতাংশ ভোট পাবে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞরা৷ মমতা চাইবেন বাং এবং কংগ্রেসের ভোট চানতে৷ সেক্ষেত্রে বারাকপুর, হুগলির মতো শিল্পাঞ্চলে পবন সিং, হেমা মালিনীদের নিয়ে এসে পালটা চাল দিয়েছে বিজেপি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.