স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: কোচবিহারের মাথাভাঙা ১ পঞ্চায়েত সমিতির কুর্শামারি গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূল কংগ্রেসকে সরিয়ে বিজেপির সমর্থনে বোর্ড গড়ল নির্দল। এই গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৩ আসনের মধ্যে তৃণমূল ৫, বিজেপি ৫, নির্দল ৩ টি আসনে জয় লাভ করে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর এই গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করে তৃণমূল কংগ্রেস।

অভিযোগ বোর্ড গঠনের সময় পাঁচ বিজেপি ও তিন নির্দল পঞ্চায়েত সদস্যকে গ্রাম পঞ্চায়েতে ঢুকতেই দেয়নি তৃণমূল কংগ্রেস। পাঁচ জন সদস্য নিয়েই প্রধান হন তৃণমূল কংগ্রেসের জুলজুলাল মিয়াঁ। বিজেপি ও নির্দল মিলে অভিযোগ করেন তৃণমূল গায়ের জোরে বোর্ড গঠন করেছে৷ এর পর বোর্ডের বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টে মামলা করে বিরোধীরা। সম্প্রতি হাইকোর্ট বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া অবৈধ বলেই রায় দিয়েছেন৷ এর পর আজ সেখানে বোর্ড গঠন হল৷

আরও পড়ুন : সিবিআই-কলকাতা পুলিশ দ্বৈরথে কংগ্রেস বনাম কংগ্রেস

এদিন এই বোর্ডগঠনকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাপা উত্তেজনা ছিল৷ গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস চত্ত্বরে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। অবশ্য এই বোর্ড গঠন প্রক্রিয়ায় অংশ নেননি তৃণমূল কংগ্রেসের পাঁচ সদস্য, তাঁদের দাবি অবৈধভাবে এই বোর্ড গঠন হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত সদস্য জুলজুলাল মিয়াঁ অভিযোগ করেন হাইকোর্টের রায়ের পরেই আমরা সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেছি, কিন্তু সেই রায় ঘোষণার আগেই এই বোর্ড গঠন অবৈধ।

এদিন বোর্ড গঠন প্রক্রিয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের পাঁচ সদস্য উপস্থিত না থাকলেও আট জন পঞ্চায়েত সদস্যর উপস্থিতিতে সর্ব সম্মতিক্রমে প্রধান নির্বাচিত হন নির্দল সদস্য মুজিবর রহমান, উপপ্রধান নির্বাচিত হয়েছে আরেক নির্দল সদস্য টুম্পা বর্মন। এদিন মুজিবর রহমান বলেন মানুষ আমাদের সমর্থন করেছে তাই আমি প্রধান হয়েছি, বিজেপি আমাদের সমর্থন করেছে।
কোচবিহার জেলা বিজেপির সম্পাদক মনোজ ঘোষ বলেন “ মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসকে চায়না, তাঁরা বিজেপি ও নির্দলকে চাইছিল তাই আমরা জোট করেছি”।