বারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া পুরসভা এলাকায় রাজনৈতিক অশান্তি অব্যাহত। একদিকে দলীয় কার্যালয় দখলের অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ। অন্যদিকে বোমাবাজির ঘটনায় উত্তপ্ত ভাটপাড়া। এসবের মধ্যেই অবশ্য ভাটপাড়া পুরসভায় অনাস্থা আনল তৃণমূল কাউন্সিলররা। এদিকে ভাটপাড়া পুরসভায় বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে রাজনৈতিক অশান্তি চলছেই।

ভাটপাড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর মিলি দত্তের বাড়িতে এবার বোমা মারার অভিযোগ উঠল বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে । মধ্যরাতে মিলি দেবীর বাড়ির নিচের তলায় পরপর দুটি বোমা মারে দুষ্কৃতীরা। ওই মহিলা তৃণমূল কাউন্সিলরের বাড়ির নিচের গ্রিল ভেঙে যায় এই ঘটনায়, ভেঙে পড়ে ছাদের চাঙরও। মিলি দেবীর অভিযোগ, “সাংসদ অর্জুন সিংয়ের আঙ্গুলি হেলনে এই বোমাবাজি হয়েছে । আমি যেহেতু তৃণমূল দল করি, তাই ওদের আপত্তি। কিন্তু আমি দিদির নীতি আদর্শ মেনে চলব। এভাবে আমাকে ভয় দেখানো যাবে না।”

অন্যদিকে বিজেপি নেতা সৌরভ সিংয়ের বক্তব্য, “কে কত টাকা তোলাবাজি করবে, তাই নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল। তার জেরে ওদের নিজেদের মধ্যে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওরা উল্টে আমাদের উপর বোমা মারছে। বৃহস্পতিবার ওরা পবন সিংয়ের উপর বোমা ছুঁড়ে ছিল। ও বেঁচে গেছে ওর লাগেনি।”

এদিকে শুক্রবার ভাটপাড়া পুরসভায় তৃণমূলের অনাস্থা চিঠি দেওয়ার পর ভাটপাড়া পুরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বিজেপি কার্যালয়কে তৃণমূল দখল করেছে বলে অভিযোগ। যদিও তৃণমূল নেতৃত্ব দাবি করেছে, ওই দলীয় কার্যালয়টি তৃণমূলের ছিল। লোকসভা ভোটের পর বিজেপি জিতলে তৃণমূলের ওই দলীয় কার্যালয় বিজেপি দখল করে নেয়। সেটি এতদিন বন্ধ হয়ে পড়ে ছিল । আমরা আমাদের পার্টি অফিস ফিরিয়ে নিলাম। আমাদের কর্মীরা এই পার্টি অফিসে এসে বসবে । ভাটপাড়া থানার পুলিশের সাহায্যে তৃণমূল ওই পার্টি অফিস দখল করেছে বলে অভিযোগ বিজেপির।