স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: ভোটের দিন যত এগিয়ে আসছে ততই বেড়ে চলেছে রাজনৈতিক সংর্ঘষ৷ যাকে ঘিরে ফের উত্তাল হল বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্র৷ বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়াল৷

ভাটপাড়া পুরসভার ১৯ নং ওয়ার্ডে আতপুর এলাকায় বেশ কয়েকটি তৃণমূল কর্মীদের বাড়িতে দুষ্কৃতী হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ৷ দুষ্কৃতীরা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে চড়াও হয়ে আরও বেশ কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর চালায়৷ তৃণমূল কর্মী ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের মারধরও করে বলে অভিযোগ৷ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়৷ তৃণমূল এই ঘটনায় সরাসরি বিজেপির দিকে আঙুল তুলেছে৷

যদিও বিজেপির পক্ষ থেকে এই ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে৷ জগদ্দল থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে। আতপুর এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

একইভাবে রবিবার গভীর রাতে উত্তর ২৪ পরগণার নৈহাটিতে বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে বচসা শুরু হয়েছিল৷ একদিকে বিজেপির নেতা ও কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছিল শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে বিজেপির বহিরাগত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল তৃণমূল কংগ্রেসের পুরপ্রধানের উপর হামলা করার।

পাশাপাশি ওই একই দিনে নৈহাটির পাওয়ার হাউস মোড়ে বিজেপি নেত্রী ফাল্গুনী পাত্র ও অন্যান্য বিজেপি কর্মীদের উপর তৃণমূল কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা করেছে বলে বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ উঠেছিল। শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই হামলা চালিয়ে বিজেপির বারাকপুর জেলা সাংগঠনিক সভাপতি ফাল্গুনী পাত্রকে মারধর করেছে ও তার গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছিল।

এই রাজনৈতিক সংঘর্ষের ঘটনায় নৈহাটি থানার পুলিশ বেশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করেছে৷ তবে ওই দুষ্কৃতীদের রাজনৈতিক পরিচয় পুলিশ জানায়নি। পুলিশের পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ করেছে বিজেপি নেতৃত্ব।