সিউড়ি: বীরভূমের ইলামবাজারের আমখই গ্রাম পর্যটন মানচিত্রে স্থান পেতে চলেছে। গ্রামের মাটি খুঁড়ে  মিলেছে নানা ধরনের জীবাশ্ম। সেই জীবাশ্ম দিয়ে আমখই গ্রামের  জমির ওপর ফসিল পার্ক তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে বন দফতর।
গত জানুয়ারি মাসে জঙ্গল ঘেরা গ্রামটিতে প্রবল জল সংকট দেখা দেওয়ায় গ্রামের পুকুর খোঁড়ার সিদ্ধান্ত নেয় গ্রামবাসীরা। সেই  সময় মাটির তলা থেকে বেশ কিছু পাথর পাওয়া গিয়েছে যার গঠন অন্য পাথরের তুলনায় ভিন্ন ধরনের।পাথরের আকৃতি দেখে গ্রামবাসীদের মধ্যে জল্পনার সৃষ্টি হয়। তারা ঘটনাটি লক্ষ্য করা মাত্রই বন দফতরে খবর দেন। এরপর বন দফতরের কর্তা সহ জেলাশাসক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।ঘটনা পরিদর্শনে বিশ্বভারতীর কলা ভবনের ছাত্রছাত্রীরাও আসে।
বন দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পাথরগুলি আসলে জীবাশ্ম। ঘটনাটি তদন্ত করার করার পর আমখই গ্রামের দশ বিঘা জমির ওপর ফসিল পার্ক তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে বন দফতর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.