স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: রাজ্যে চলছে তিনটে রাজ। সিন্ডিকেট, ক্যাডার আর ভাতিজা রাজ। এমনটাই দাবি করলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব৷ বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা আসনের বিজেপি প্রার্থী সুরিন্দরজিৎ সিং আলুওয়ালিয়া সমর্থনে পূর্ব বর্ধমানের গলসী ২ নং ব্লকে নির্বাচনী জনসভায় আসেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব।

এদিন তিনি বলেন, গোটা দেশ জুড়ে আন্ডার কারেন্ট নয়, প্রকাশ্যেই মোদীর কারেন্ট চলছে। শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ছিলেন বাংলার বাঘ। আর বাঘ কখনও অর্ধেক খায়না। খেলে পুরোটাই খায়। তাই বাংলাতেই অর্ধেক আসন নয়। ৪২ টি আসনেই জয় পাবে বিজেপি।

এদিন গলসীর এই মাঠে বিকেল ৪ টেয় এই সভা হওয়ার কথা ছিল৷ কিন্তু বিপ্লব দেব আসেন প্রায় ৪ ঘণ্টা দেরিতে। ফলে কার্যত সিংহভাগ মানুষই সভা ছেড়ে চলে যান। বিরোধীদের হেলিকপ্টার নামতে না দেওয়া, বিজেপিকে সভা করতে না দেওয়া এবং নিরাপত্তা না দিতে পারা নিয়েও রাজ্যের তৃণমূল সরকারের সমালোচনা করেন বিপ্লব দেব।

বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী সুরিন্দরজিৎ সিং আলুওয়ালিয়া বলেন, সন্ত্রাসমুক্ত পশ্চিমবঙ্গ একমাত্র মোদী করতে পারবে। বাংলায় ৪২ টি আসনের মধ্যে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠ পেলে ৬ মাসের মধ্যে মোদী সরকারকে দিয়ে বিধানসভা নির্বাচন করিয়ে দেবো। সন্ত্রাস থেকে মুক্তি করানোর জন্যই এই নির্বাচন করান হবে। দার্জিলিং থেকে গতবারের সাংসদ ছিলেন তিনি৷ এবার সেখানে তাঁকে টিকিট দেয়নি দল৷

দলীয় সভায় প্রবীণ ও হেভিওয়েট নেতা আলুওয়ালিয়া বলেন, বাংলায় পুলিশ কর্মীরা চাকরের মত রয়েছে। অন্য রাজ্যে পুলিশ কর্মীদের যে সুযোগ সুবিধা পান, এখানে তা পান না। বাংলার মানুষকে পুলিশ দিয়ে চাপের মধ্যে রাখা হয়েছে। সাধারণ মানুষের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার উপায় নেই। স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার নেই। কেউ নিজের স্বাধীন মত প্রকাশ করতে গেলেই তাদের নানাভাবে ফাঁসিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আলুওয়ালিয়া জানিয়েছেন, লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে বাংলার পুলিশ কর্মীদের অন্য রাজের মতোই সুযোগ সুবিধা দেবার জন্য চাপ সৃষ্টি করবে।