নিউ ইয়ার্ক:  ধানের খড়-কুটো এবং ভুট্টা গাছ দিয়ে তৈরি হবে বায়ো-ফুয়েল। আর এই ফুয়েলের মাধ্যমেই চলবে ভবিষ্যতের গাড়ি। সম্প্রতি এমন তথ্য জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র্যের ইস্ট অ্যানজিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। তারা জানান, খামারে ফেলা দেওয়া কৃষি বর্জ্য দিয়েই গাড়ির চাকা ঘোরানো সম্ভব। এতে করে ময়লা আবর্জনার দূষণ থেকে যেমনি রেহাই পাওয়া যাবে, তেমনি গাড়ির তেল খরচ ও কমে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।
গবেষকরা জানিয়েছেন, এসব কৃষি বর্জ্য পচিয়ে ইস্ট তৈরি করা হবে। এরপর ইস্টকে পাস্তুরিত করে বায়োইথানল প্রস্তুত করা হবে। বায়োইথানল অ্যালকোহল গোত্রীয় বায়ো-ফুয়েল। গবেষকরা ধারণা করছেন, সারা পৃথিবীর কৃষি বর্জ্য থেকে বছরে প্রায় ৪০০ বিলিয়ন লিটার বায়ো-ইথানল উৎপাদন করা সম্ভব।
যদিও এই প্রক্রিয়া সময় সাপেক্ষ বলে মনে করা হচ্ছে। কেননা, কৃষি বর্জ্য পচানোর জন্য উচ্চ তাপমাত্রার প্রয়োজন হয়। একই সঙ্গে অ্যাসিড ক্ষরণের মাধ্যমে গ্লুকোজে রূপান্তরিত হওয়ার প্রক্রিয়াও ধীর গতিতে চলে। গবেষকগণ কৃষি বর্জ্য পচানোর প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্য রূপান্তরিত ইস্টের কথা ভাবছেন। যা দিয়ে গাঁজানোর প্রক্রিয়া সহজ হবে।
গবেষণাদলের প্রধান ড. টম ক্লাক জানিয়েছেন, বায়োইথানল একটি মূল্যবান দাহ্য পদার্থ। বিশেষ করে অটোমোবাইল শিল্পে এই দাহ্য পদার্থ সচরাচর ব্যবহৃত হচ্ছে। বায়োইথানলের সঙ্গে পেট্রোল মিশিয়ে গাড়িতে ব্যবহার করা যায়।
ব্রাজিলে ১৯৭৯ সাল থেকে গাড়ির ফুয়েল হিসেবে বায়োইথানল ব্যবহার করা হচ্ছে।