নয়াদিল্লি: সংকল্প পত্রে বিজেপির প্রতিশ্রুতি ছিল, ফের ক্ষমতায় এলে তিন তালাক বিরোধী বিল পাশ করিয়েই ছাড়বে৷ সেই ‘সংকল্প’ রক্ষায় শুরু থেকে তৎপর গেরুয়া শিবির৷ সোমবার কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ জানান, ফের সংসদে তিন তালাক বিরোধী বিল পেশ করা হবে৷

প্রথম মোদী সরকারের বিতর্কিত বিলগুলির একটি তিন তালাক বিল৷ লোকসভায় সেটি পাশ হলেও সংখ্যাগরিষ্ঠতার অভাবে রাজ্যসভায় বিলটি পাশ করাতে পারেনি বিজেপি৷ সেখানে ঝুলেই থাকে বিলটি৷ তারপর সরকারের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়৷ নির্বাচনের পর সেই বিজেপিই ফের ক্ষমতায়৷ আর গতবারের থেকে অনেক শক্তিও বেড়েছে তাদের৷ এদিন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রীকে তিন তালাক বিল নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান অবশ্যই বিলটি সংসদে পেশ হবে৷ তাছাড়া তিন তালাক বিল পাশ করানোর কথা বিজেপির সংকল্প পত্রে উল্লেখ ছিল৷

প্রথম মোদী সরকারের আমলে তিন তালাক বিরোধী বিল নিম্নকক্ষে পাশ হলেও রাজ্যসভায় আটকে যায়৷ নিয়ম অনুযায়ী, লোকসভা ভেঙে গেলে রাজ্যসভায় ঝুলে থাকা বিলগুলির কোনও গুরুত্ব থাকে না৷ লোকসভায় কোনও বিল পাশ হলেও যেহেতু সেটি রাজ্যসভায় পাশ করেনি তাই নতুন করে আবারও বিলটি পেশ করতে হবে৷ তিন তালাক বিরোধী বিলটি পাশ করিয়ে আইনে রূপান্তরিত করতে গেলে দ্বিতীয় মোদী সরকারকে সংসদের দুটি কক্ষেই বিলটিকে পেশ করে পাশ করাতে হবে৷

২০১৮ সালের অগষ্ট মাসে সুপ্রিম কোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে তিন তালাককে অবৈধ ঘোষণা করে৷ এরপরই শীর্ষ আদালত কেন্দ্রকে নয়া আইন আনার নির্দেশ দেয়৷ সেই মতো মুসলিম ওম্যান প্রোটেকশন অফ রাইটস অন ম্যারেজ বিল নিয়ে আসে কেন্দ্রীয় সরকার৷ কিন্তু বিলটি লোকসভায় পেশ হলে বিরোধীদের প্রবল বিরোধিতার জেরে রাজ্যসভায় আটকে যায়৷ তাই কেন্দ্রকে অর্ডিন্যান্স এনে বিলটিকে আইনি পরিণত করার চেষ্টা করে৷ দু’বার অর্ডিন্যান্স আনে কেন্দ্র৷ ফলে কোনও মুসলিম মহিলাকে তাঁর স্বামী তাৎক্ষণিক তিন তালাক দিলে তা অবৈধ ও শর্তসাপেক্ষে জামিন অযোগ্য ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য হয়৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।