কলকাতা: সারদা-রোজভ্যালি-পুরসভা যোগ নিয়ে কংগ্রেসের বিক্ষোভে ধুন্ধুমার কাণ্ড বাঁধল কলকাতা পুরসভা চত্বরে। কংগ্রেস ও পুলিশ কর্মীদের মধ্যে চলল লাঠির লড়াই। কংগ্রেস কর্মীদের উপর পুলিশ নির্বিচারে লাঠি চালায় বলে অভিযোগ। প্রকাশ উপাধ্যায় সহ বহু কংগ্রেস নেতা-কর্মী গ্রেফতার হন। এর প্রতিবাদে পুরসভার সামনে পাল্টা অবস্থানে বসে কংগ্রেস।

জানা গিয়েছে, সারদা ও রোজভ্যালি কাণ্ডের সঙ্গে কলকাতা পুরসভার যোগ রয়েছে বলে আগেই সরব হয়েছিল কংগ্রেস। এদিন এর প্রতিবাদ জানিয়ে কলকাতা পুরসভার সামনে চ্যাপলিন স্কোয়্যারে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা। পুলিশ জোর করে এই বিক্ষোভ হটায় এবং বিক্ষোভ হটাতে গিয়ে কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের উপর নির্বিচারে লাঠিচালনা করে বলে অভিযোগ। চ্যাপলিন স্কোয়্যারে পুলিশ-কংগ্রেস খণ্ডযুদ্ধও বেধে যায়। তারপর প্রকাশ উপাধ্যায় সহ কংগ্রেসের বহু নেতা-কর্মীকে গ্রেফতারও করে পুলিশ। এরপর পুলিশের এই আচরণের প্রতিবাদে এদিন বিকেলে কলকাতা পুরসভার সামনে অবস্থানে বসে কংগ্রেস।    

 

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.