স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আইনজীবীরা রাজনীতির বাঁধা ছক ভেঙেছেন বার বার। প্রবীণ বামপন্থী আইনজীবী এবং কলকাতার প্রাক্তন মেয়র বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য যখন কলকাতা হাইকোর্টে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের হয়ে মামলায় সওয়াল করেছেন, তা আবার প্রমাণিত হয়েছে।

বুধবার মুকুল রায়ের গ্রেফতারি পরোয়ানা খারিজ করল কলকাতা হাইকোর্ট। নেপথ্যে ছিলেন বিকাশ। ২০১৮ সালে বড়বাজারে রেলের এক অফিসারের থেকে ৮০ লাখ টাকা নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। সাক্ষী হিসাবে ডেকে পাঠানো হয় মুকুল রায়কে। কিন্তু মুকুল রায় তদন্তকারী সংস্থাকে জানান, তদন্তকারী অফিসার এটা করতে পারেন না। কারন তিনি দিল্লির বাসিন্দা৷ তবে মুকুল রায়ের জন্য সুখের খবর এই যে, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা গ্রেফতারি পরোয়ানা খারিজ হয়ে গিয়েছে। মুকুলকে বাঁচিয়েছেন বিকাশ সহ অন্যান্য আইনজীবীরা।

তবে মুকুলের হয়ে যখন বিকাশ সওয়াল করছেন, স্বস্তিতে নেই আলিমুদ্দিন। সারদা, নারদা সহ মুকুলের বিরুধ্যে একাধিক বিচারাধীন মামলা রয়েছে। সেই মামলায় ভুক্তভোগী দের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন বিকাশ ভট্টাচার্য। মূল অভিযুক্তের তালিকায় যেখানে রয়েছেন মুকুল রায়, সেই মামলায় তাঁর বিরুধ্যে সওয়াল করেছেন বিকাশ। কিন্তু, বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে এমন বিপরীত চিত্র কেন? আলিমুদ্দিন বলছে, বিকাশ ভট্টাচার্যের ব্যক্তিগত ব্যাপার। অনেকেই বিকাশ ভট্টাচার্যের সঙ্গে কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক মনু সিংভির তুলনা শুরু করেছেন। তিনি রাজ্য সরকার এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে সুপ্রিম কোর্টে পঞ্চায়েত মামলা লড়েছিলেন।

সিপিএম, কংগ্রেস এবং বিজেপি রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধ্যে মামলা করেছিলেন। নিজের দল কংগ্রেসের বিরুদ্ধ্যে লড়াই করেছিকেন বলে তৎকালীন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর থেকে তাঁকে কটূক্তি শুনতে হয়েছিলো। বুধবার যদিও আলিমুদ্দিন থেকে সরাসরি বিকাশের বিরুদ্ধ্যে কেউ কিছু বলেননি, তবে যা খবর আলিমুদ্দিন তা ভালো চোখে দেখেনি। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর বক্তব্য, বিকাশ ভট্টাচার্য স্বনামধন্য আইনজীবী। তিনি মামলা লড়বেন, কার হয়ে লড়বেন তা তার বিচার্য।

অভিষেক মনু সিংভির সঙ্গে তার তফাত আছে। অনেক মানুষের সর্বনাশ হয়েছে পঞ্চায়েতে। অভিষেক সেই মানুষগুলির বিরুদ্ধ্যে লড়াই করেছেন। বিকাশ বাবু একজন ব্যক্তির জন্য লড়াই করছেন। দুটো এক নয়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের বক্তব্য, কংগ্রেসের কপিল সিববল, অভিষেক মনু সিংভি, বিজেপির অরুণ জেটলি কিংবা সিপিএমের বিকাশ ভট্টাচার্য রা আদালতের অলিন্দে থেকে রাজনীতির শক্ত দেওয়াল ভেঙেছেন বারবার।