Colorful Hindu wedding in India

পাটনা: করোনা পরিস্থিতিতে ভয়াবহ খবর। বিয়ের দু’দিন পরেই মৃত্যু হয়েছে ৩০ বছর বয়সী বরের। এবার সেই বিয়ের অংশ ছিলেন এমন ৯০ জন একইসঙ্গে নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলেই জানা যাচ্ছে।

যদিও গুরুগ্রামে কর্মরত ওই ইঞ্জিনিয়রের শেষকৃত্য কোভিড-১৯ পরীক্ষা না করেই করা হয়েছে। যদিও তাঁকে উপসর্গযুক্ত হিসেবেই চিহ্নিত করা হয়েছিল।

ঘটনাটি ঘটেছে পাটনা থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে পালিগঞ্জ গ্রামে। প্রশাসনের কাছে এই খবর পৌঁছলে কাছের আত্মীয়দের করোনা পরীক্ষা করা হয়। জুনের ১৫ তারিখ যে ১৫ জন সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন তাঁরা করোনা পজিটিভ বলেই জানা গিয়েছে।

শুরুরদিকে ততটা গুরুত্ব না দেওয়া হলেও একে একে শুরু হয়েছে কনট্যাক্ট ট্রেসিং। সোমবার, নভেল করোনা ভাইরাসের জন্য ৮০ জন পজিটিভ হয়েছেন। বিহারে এটি গণ সংক্রমণের প্রথম ঘটনা বলে জানা গিয়েছে।

প্রশাসনকে না জানিয়ে পরিবারের তরফে মৃত ওই ইঞ্জিনিয়রের শেষকৃত্য হওয়ায় তাঁর করোনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি। পুলিশ সূত্রের খবর, মে মাসের ১২ তারিখ ৩০ বছরের ইঞ্জিনিয়র বিয়ের জন্য নিজের গ্রামে দিহপালিতে পৌঁছে ছিলেন। এই সময়ের মধ্যে তিনি কোভিড-১৯ উপসর্গ তৈরি করেছেন তবে পরিবার সেই বিষয়টিকে গুরুত্ব না দিয়েই বিয়ের অনুষ্ঠান করেছেন।

তবে বিয়ের দু’দিন পরে তাঁর শরীর হঠাতই খারাপ হতে শুরু করে এবং পাটনার এআইআইএমএস হাসপাতালে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। বরের মৃত্যু হলে সকল গেস্টদের কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়। ৯৫ জনের পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এলে কনের নেগেটিভ এসেছে।

প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, পরিবারের দ্বারা একাধিক গাইডলাইন ভাঙা হয়েছে এবং উপসর্গ দেখার পরেও বিয়ের অনুষ্ঠানে সম্মতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ভাঙা হয়েছে সোশ্যাল ডিসট্যানসিংয়ের নিয়ম। নিয়ম অনুযায়ী শুধুমাত্র ৫০ জন উপস্থিত থাকার নিয়ম রয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ