পাটনা: ফের গণধর্ষণ৷ এবার বিহার৷ ভেলদি পুলিশ স্টেশনের কাছেই একটি চলন্ত গাড়ির মধ্যে এক কিশোরীকে গণধর্ষণ করল চার ব্যক্তি৷ শনিবার ভেলডি পুলিশ স্টেশনের সাব ইন্সপেক্টর শিবনাথ রাম জানান, নির্যাতিতাকে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য পাঠানো হয়েছে৷

সূত্রের খবর, ওই কিশোরীকে চার অভিযুক্ত অপহরণ করে৷ তারপর একটি চলন্ত গাড়ির মধ্যে তার ওপর পৈশাচিক অত্যাচার চালিয়ে তাকে গার্খা গ্রামের কাছে ফেলে দিয়ে পালায় ওই চারজন৷ সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন থেকে পরিবারের সদস্যদের ঘটনার কথা জানায় নির্যাতিতা৷

খবর পেয়ে ওই কিশোরীর পরিবার তাকে নিয়ে দেরনি পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ জানাতে যায়৷ অভিযোগে পিরারিদিহ গ্রামের রানা প্রতাপ সিংয়ের নাম উঠে আসে৷ যেখানে কিশোরীর সঙ্গে এই ঘটনা ঘটেছে সেখানে পুলিশের একটি দল অনুসন্ধানে যায়৷ পুলিশের অন্য একটি দল যায় রানা প্রতাপের বাড়িতে৷ কিন্তু সেখানে অভিযুক্তকে পাওয়া যায়নি৷ অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্তে নেমেছে বলে জানা গিয়েছে৷

এর কয়েকদিন আগেই, ১৬ বছরের নাবালিকাকে টানা পাঁচ দিন গণধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই অশান্ত হয়ে ওঠে অন্ধ্রপ্রদেশের অঙ্গোল এলাকা৷ পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকার একটি বাড়িতে রুমে আটকে রেখে ৬ ব্যক্তি লাগাতার পাঁচ দিন ধরে যৌন অত্যাচার করে নাবালিকার ওপরে৷ অভিযুক্ত ৬ জনের মধ্যে তিনজন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের৷

প্রকাশম ডিস্ট্রিক্ট সুপারিন্টেডেন্ট অব পুলিশ সিদ্ধার্থ কৌশল সাংবদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, গত ১৭ জুন অঙ্গোলের আরটিসি বাস স্টেশনে বন্ধুর জন্য অপেক্ষা করছিল ওই নাবালিকা৷ তখনই তার সঙ্গে আলাপ করার চেষ্টা করে অভিযুক্তদের মধ্যে একজন৷ তার সঙ্গে কথাবার্তা-ঘনিষ্ঠতা বাড়িয়ে তাকে একটি বাড়িতে নিয়ে যায় ওই ব্যক্তি, সেখানে সেই ব্যক্তি এবং তাঁর পাঁচ বন্ধু গণধর্ষণ করে৷