মেদিনীপুর: বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর উপর হামলা৷ ভেঙে দেওয়া হল তার গাড়ি৷ প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ৷ এলাকায় বসানো হয়েছে পুলিশ পিকেটিং৷

শুক্রবার পূর্ব মেদিনীপুরের ভুপতিনগর থানা যান বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু৷ তখনই তাকে উদ্দেশ্য করে গো ব্যাক স্লোগান দেওয়া হয়৷ থানা থেকে বের হওয়ার পর তাকে ঘিরে ধরে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়৷

বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর অভিযোগ, পুলিশের সামনেই তার উপর হামলা চালায় তৃণমূল৷ কিন্তু পুলিশ ঠুঁটো জগন্নাথের মত দাঁড়িয়ে ছিল৷ আমার গাড়ি ভাঙ্গচুর করা হয়েছে৷ তাছাড়া আরও কয়েকটি গাড়ি ভাঙ্গচুর করা হয়৷ আমাদের কর্মীদের মারধর করা হয়েছে৷ এরপর একটি পার্টি অফিসে আশ্রয় নেই৷ সেখান থেকে ঝাড়গ্রামে যাব৷

তিনি আরও জানান, ৩০০-৩৫০ তৃণমূল কর্মীরা লাঠি ও ইট নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়৷ এর প্রতিবাদে বিজেপি কর্মী ও সমর্থকরা রাস্তা অবরোধ করে৷ সায়ন্তন বসুর অভিযোগ, গত ৫-৬ দিন ধরে ভুপতিনগর থানা এলাকায় ডাঙ্গা হাঙ্গামা চলছে৷

বিজেপি কর্মী ও সমর্থকদের মারধর করা হচ্ছে৷ কিছুদিন আগে একজন মহিলাকে মেরে দেওয়া হয়েছে৷ যদিও তৃণমূলের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ শাসকদল অস্বীকার করেছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.