কলকাতা: উত্তর কলকাতায় বিধ্বংসী আগুন৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের ২০টি ইঞ্জিন৷ খবর পেয়ে সেখানে যান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু৷ বেশ কয়েক ঘন্টার চেস্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে হতাহতের কোনও খবর নেই৷

ব্যস্ত সময়ে কলকাতায় বিধ্বংসী আগুন। উত্তর কলকাতার বিবেকানন্দ রোডের একটি বহুতলের ঘটনা৷ শুক্রবার বিকেল ৩টা নাগাদ ওই বহুতলের একটি গোডাউনে আগুন লাগে৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের ২০টি ইঞ্জিন৷ বেশ কয়েক ঘন্টার চেস্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে৷ আগুন লাগার কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, উত্তর কলকাতার বিবেকানন্দ রোডে সিমলা ব্যায়াম সমিতির কাছের একটি বহুতল৷ ৮ তলা ওই বহুতলের গ্রাউন্ড ফ্লোরে আগুন লাগে৷ কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে যায় গোটা এলাকা৷ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে৷ উত্তর কলকাতায় ব্যহত হয় যানবাহন চলাচল৷ দেখা দেয় যানজট৷ যদিও পরে পুলিশ তা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন৷ কিন্তু আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে বহুতলের উপরের তলাগুলি খালি করে দেওয়া হয়৷

দমকলের পাশাপাশি ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা দল৷ যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে৷ প্রথমে আগুনের উৎস স্থলে পৌঁছতে পারেনি দমকল কর্মীরা৷ পরে চারটি গেটের মধ্যে দু’টি গেট দিয়ে ঢোকতে পারেন তারা৷

দমকলের অভিযোগ, বহুতলের ওই গোডাউন ভর্তি ছিল দাহ্য পদার্থ৷ যা থেকে মূহুর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে৷ তবে আগুন নেভানোর মত কোনও পরিকাঠামো ওই বহুতলে ছিল কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ কি কারণে আগুন লেগেছে, তা এখনও জানা যায়নি৷ আগুন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসার পরই, তদন্ত করে দেখা হবে ,কিভাবে আগুন লেগেছে৷

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি,শুক্রবার বেলা আড়াইটা নাগাদ আচমকাই ওই বহুতলে গোডাউনে আগুন লাগে। কালো ধোঁয়ায় ভরে যায় চারিপাশ। এর পর সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় দমকলে। প্রথমে দমকলের ৯টি ইঞ্জিন এসে আগুন নেভানোর কাজ করে। এর পর আরও কিছু ইঞ্জিন এসে আগুন নেভানোর কাজ করে। প্রায় ২০টি ইঞ্জিনের চেষ্টায় আয়ত্ত্বে আসে সেই আগুন।