নয়াদিল্লিঃ  কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্যে সুখবর। সম্ভবত উৎসবের মরশুমেই বেতন বৃদ্ধি নিয়ে বড়সড় সুখবর শুনতে চলেছেন। দীর্ঘদিন ধরে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের নুন্যতম বেতন বৃদ্ধি নিয়ে আলোচনা চলছে। বারবার এই বিষয়ে মোদী সরকার আলোচনা করলেও বেতন বাড়েনি সরকারি কর্মীদের। তবে এবার কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের একদ ধাক্কায় বেতন বাড়তে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষ করে দীর্ঘদিনের নুন্যতম বেতন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত দ্বিতীয় মোদী সরকার নিতে পারে বলে জানা গিয়েছে। চলতি মাসেই এই বিষয়ে বড় সিদ্ধান্ত সরকার নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, চলতি মাসেই এই বিষয়টি নিয়ে বৈঠকে বসতে চলেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। যে বৈঠকে অর্থমন্ত্রকের আধিকারিকরাও উপস্থিত থাকবেন। পাশাপাশি ব্যাংক কর্মচারী ইউনিয়নের আধিকারিকরাও থাকবেন বলে জানা গিয়েছে। আগামী সপ্তাহের শুরুতেই এই বিষয়ে বৈঠক হতে পারে বলে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মোদীর শাসকালের শেষ দিকে সরকারি কর্মচারীদের জন্যে বড় কিছু ঘোষণা করতে পারে বলে ইঙ্গিত মিলেছিল। কিন্তু শেষমেশ কিছুই মেলেনি। যাতে সরকারি কর্মীদের কার্যত আশাভঙ্গ হয়। এরপর নির্বাচনে কমিশনের আচরণ বিধি লঙ্ঘন হয়ে যাওয়াতে কিছুই ঘোষণা করা যায়নি। কিন্তু ভোট মিটলেই সরকারি কর্মীদের জন্যে বড় কিছু ঘোষণা মোদী সরকার করতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিল বিজেপি।

এই অবস্থায় দ্বিতীয় বারে জন্যে দিল্লির মসনদে ফিরেছেন নরেন্দ্র মোদী। সরকারি কর্মীদের একটা বড় অংশ মোদীর পাশেই ছিল। ফলে মনে করা হয়েছিল এই আর্থিক বাজেটে সরকারি কর্মীদের সমস্ত দাবি-দাওয়া মেনে নিয়ে বড় কিছু ঘোষণা করা হতে পারে। কিন্তু কিছুই ঘোষণা করা হয়নি কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্যে।

সূত্রের খবর, সরকারি কর্মীদের এখন মাত্র ১৮ হাজার টাকা নুন্যতম বেতন। কর্মীরা মনে করে ছিলেন খুব দ্রুত সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশকে মান্যতা দিতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। সুপারিশ মোতাবেক ৮০০০ টাকা বৃদ্ধি হতে পারে। যার ফলে সরকারি কর্মীদের নুন্যতম বেতন বৃদ্ধি একধাক্কা বেড়ে ২৬ হাজার টাকা হতে পারে। অবশেষে এই বিষয়ে আলোচনা করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।