কলকাতা: অবশেষে ক্রিকেটের নন্দনকাননকে কোয়ারেন্টাইন করার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা পুলিশ৷ শুক্রবার জরুরীভাবে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল অর্থাৎ সিএবি-র সঙ্গে লালাবাজারে কলকাতা পুলিশ কর্মীদের বৈঠকে ইডেনে গার্ডেন্সের গ্যালারিকে অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন হিসেবে ব্যবহার করার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

এদিন লালবাজারের পুলিশ সদর দফতরে সিএবি কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়৷ বৈঠকে সিএবি কর্তাদের কাছে  ইডেনে গার্ডেন্সের গ্যালারিকে অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইন হিসেবে ব্যবহার করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়৷ আবেদনে সাড়া দেন সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া এবং সচিব  স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়৷

সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে ই, এফ, জি এবং এইচ ব্লকের গ্যালারিগুলির অধীনে কোয়ারেন্টাইন স্থাপনের জন্য ব্যবহৃত হবে। যদি আরও স্থান প্রয়োজন হয়, সেক্ষেত্রে জে ব্লকটি ব্যবহারের জন্যও রাখা যেতে পারে। এই ধরনের অঞ্চলগুলি সুরক্ষা ব্যবস্থা হিসাবে পুরোপুরি আলাদা করা হবে। যেহেতু ক্লাব হাউসে প্রশাসনিক ক্রিয়াকলাপ ঘটে তাই সংলগ্ন ব্লকগুলি (বি, সি, ডি, কে এবং এল) ব্যবহার করা হবে না৷

সিএবি প্রেসিডেন্ট ডালমিয়া বলেন, ‘সঙ্কটের এই সময়ে প্রশাসনকে সহায়তা করা এবং তাদের সমর্থন করা আমাদের দায়িত্ব। কোয়ারেন্টাইন সুবিধাটি পুলিশ কর্মীদের জন্য ব্যবহৃত হবে যাঁরা কোভিড যোদ্ধা। আন্ডার গ্যালারিগুলি যা ই, এফ, জি, এইচ এবং জে ব্লকগুলিতে ব্যবহৃত হবে তা যথাযথভাবে পৃথক করে ব্যালেন্স অঞ্চলগুলি থেকে সুরক্ষিত করা হবে। কলকাতা পুলিশ ও সিএবির মধ্যে সম্মত এই ব্যবস্থাটি ক্রিকেট ও প্রশাসনিক ক্রিয়াকলাপের জন্য ব্যবহৃত অঞ্চলগুলি যাতে অকার্যকর থাকে তা নিশ্চিত করবে৷’

এদিকে, স্টেডিয়ামের অভ্যন্তরে বি, সি, কে এবং এল ব্লকের ছাত্রাবাস এবং অন্যান্য নিরাপদ স্থানে গ্রাউন্ডসম্যান এবং অন্যান্য কর্মীদের স্থানান্তরিত করা হবে।

ইডেন গার্ডেন্সকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে ব্যাবহার করার জন্য আগেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলেছিলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷ সে সময় প্রয়োজন না-হওয়ায় সৌরভের আবেদেন সাড়া দেয়নি প্রশাসন৷ কিন্তু এদিন কোভিড যোদ্ধাদের জন্য ইডেনের গ্যালারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার সিদ্ধান্ত নিল সিএবি ও কলকাতা পুলিশ৷

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব