স্টাফ রিপোর্টার, সিউরি: বীরভূমের আহমেদপুরের কাছে দুর্ঘটনার কবলে অনুব্রত মণ্ডলের কনভয়। জানা গিয়েছে, আজ, মঙ্গলবার ময়ূরেশ্বর ২ নম্বর ব্লকে জনসভা ছিল তাঁর। সেই জনসভায় যোগ দিতে ময়ূরেশ্বর যাচ্ছিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি। সেই সময়ই আমোদপুরের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অনুব্রতর কনভয়ে থাকা দুটি গাড়ি। জখম হয়েছেন কনভয়ের দুই চালক। তবে, সুস্থ রয়েছেন অনুব্রত।

বেলা ৩টে নাগাদ আমোদপুরে  দুর্ঘটনার মুখে পড়ে তাঁর কনভয়ে থাকা দু’টি গাড়ি। রাস্তায় কনভয়ের মধ্যে আচমকা একটি কুকুর ঢুকে পড়ে। তার জেরে হঠাৎ ব্রেক কষতে হয় দ্রুত গতিতে ছুটতে থাকা একটি গাড়িকে। সামনের গাড়ি আচমকা ব্রেক কষায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তার পিছনে সপাটে ধাক্কা কনভয়ের আরও একটি গাড়ি। অনুব্রতর গাড়ি অবশ্য কনভয়ের প্রথম দিকে ছিল। আহত হয়েছে তিন জন পুলিশকর্মী। দু’টি গাড়ির চালকও সামান্য জখম হন। তাঁদের দ্রুত নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এর পর ময়ূরেশ্বরের জনসভায় পৌঁছন অনুব্রত।

তবে এই দুর্ঘটনার পর অনুব্রত মণ্ডলের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। মঙ্গলবারই গীতাঞ্জলিেত হিন্দিভাষীদের সভা থেক অনুব্রত মণ্ডল বলেন, সিবিআই তাঁকেও নোটিস পাঠাতে পারে। বীরভূম জেলা সভাপতির এই মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

সোমবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে মুরারইয়ে সভা থেকে অনুব্রত বলেছিলেন, সব বিক্রি করার মতলব। এর আগে হলদিয়ায় এসেছিলেন সেটাও বিক্রির জন্য। বারবার আসছেন আর দেখছেন কী কী বিক্রি করা যায়।

উল্লেখ্য, কদিন আগে পুরুলিয়ার সভায় যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর কনভয়। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছিল শুভেন্দুর কনভয়ে মোট ৭ টি গাড়ি ছিল। ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় ওন্দায় উলটো দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্য়ান আচমকাই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কনভয়ের পিছনের দুটি গাড়িতে ধাক্কা দেয়ে। ক্ষতিগ্রস্থ হয় একটি গাড়ি। ওই গাড়িতে উপস্থিত এক নিরাপত্তা রক্ষী আহত হন। তবে সম্পূর্ণ সুস্থ ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।