সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় : একেই বলে জোট। যাহা করিব একসঙ্গে করিব,একলা নয় একজোটে করিব। এবারে মনে হয় এমন মন্ত্রই নিয়েছে রাজ্য কংগ্রেস ও বামেরা। না হলে বিধান রায়ের জন্মদিন, তাও খোদ বিধান ভবনে পালন করবে দুই দল একসঙ্গে! এতও আর যে সে ব্যপার নয়।

অতীতেও এক জোট হয়েছিল সিপিআই ও কংগ্রেসে। একবার ভোটের জন্য জোট বেঁধেছিল বাম কংগ্রেস, কিন্তু এই প্রথম জোট বেশ শক্ত করার চেষ্টা চলছে দুই পক্ষের। বিধানচন্দ্র স্বপ্নেও যা ভাবেননি তা হতে পারে সোমবার সকাল দশটায়। বিধান ভবনের সামনে কম রেড হয়েও কমরেড হবেন তিনি। বাম কংগ্রেস একজোটে বিধানভবনে পালন করতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গের রূপকার তথা স্বাধীনতার পড়ে রাজ্যের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী ডঃ বিধানচন্দ্র রায়ের জন্মদিন। ভুল করে ‘কমরেড লাল সেলাম’ যদি ধ্বনি উচ্চারিতও হয়ে যায় তাতে কিছু বলার থাকবে না। একজোট……বিধানচন্দ্র রায়ের ১৩৮ তম জন্মদিন অনুষ্ঠিত হবে আগামী বুধবার। প্রদেশ কংগ্রেসের সদর দফতর বিধান ভবনে বিধান স্মরণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১৯৯২ সাল থেকে। তখন বাম আমলের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের শপথ নিতেই বিধান রায়ের মূর্তির পাদদেশে সামিল হতেন। আরও আগে এটাও ঘটনা যে বিধান রায়ের মুখ্যমন্ত্রীত্বে প্রশ্ন তুলেই তৎকালীন বিরোধী বামেদের রাজনৈতিক পথচলা।

প্রসঙ্গত বরাবরই সোমেন মিত্র এই অনুষ্ঠানের আয়োজক হলেও কংগ্রেসের সোমেন বিরোধীরাও বছর বছর শামিল হয়েছেন এই অনুষ্ঠানে। পয়লা জুলাই ২০২০-এর এই অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে কংগ্রেসের পক্ষে জানানো হয়েছে, ‘আগামী পয়লা জুলাই বাংলার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায়ের জন্মদিনে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র, বিধান ভবনে আমন্ত্রণ জানালেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু সহ অন্যান্য বাম নেতাদের। প্রতি বছরই এই দিনটি পালন করা হয় সারাদিনের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে। এই বছর লক ডাউন তথা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য শুধুমাত্র সকাল সাড়ে ১০টায় সংক্ষিপ্ত শ্রদ্ধাঞ্জলির অনুষ্ঠান করা হবে। উল্লেখ্য, গত ২রা অক্টোবর মহাত্মা গান্ধীর জন্ম দিবস উপলক্ষে একটি চিত্র প্রদর্শনীতে বিধান ভবনে উপস্থিত হয়েছিলেন বাম নেতৃবৃন্দ। এদিকে, আগামী ২ রা জুলাই বিকেল ৪ টায় ফরওয়ার্ড ব্লকের নেতা অশোক ঘোষের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে তাঁদের দফতরে উপস্থিত থাকার জন্য প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র সহ অন্যান্য কংগ্রেস নেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ফরওয়ার্ড ব্লকের সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায়। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন।’ বলা যেতে পারে এক জোটে মিলায়ে বাম-কংগ্রেস, ‘বিধান’ বহুদূর।

পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে বাম-কংগ্রেস এক সাথে প্রতিবাদে পথে নামল। আজ রানাঘাট পৌরসভা থেকে একটি মিছিল রানাঘাটের রাজপথ প্রদক্ষিণ করে পৌরসভায় এসে শেষ হয়। অন্যদিকে কৃষ্ণনগর, শান্তিপুর, তাহেরপুর, বিননগর সহ একাধিক জায়গায় এই বিক্ষোভ সংঘটিত হয়।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV