দুবাই: নিছক নিয়ম রক্ষার ম্যাচ৷ কিন্তু তাতে কি এসে যায় অনুরাগীদের৷ এশিয়া কাপের সুপার ফোরে ভারত-আফগানিস্তান ম্যাচ ঘিরে সমর্থকদের আবেগ ছিল একই রকম বাঁধনছাড়া৷ গ্যালারির সেই আবেগ যথন মাঠের লড়াইয়ের উত্তাপকে ছাপিয়ে যায়, তখন স্বাভাবিকভাবেই স্থির থাকা সম্ভব নয় ক্রিকেটারদের পক্ষেও৷ ঠিক তেমনটাই ঘটে দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে৷

আরও পড়ুন: ধোনির মাইলস্টোন ম্যাচে ঐতিহাসিক ‘টাই’

টুর্নামেন্টে প্রতিদ্বন্দ্বী দু’দলের ভাগ্য আগেই নির্ধারিত হয়ে গিয়েছিল৷ টুর্নামেন্ট থেকে আফগানিস্তানের বিদায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল এবং ভারত ফাইনালে উঠে গিয়েছিল আগেই৷ অর্থাৎ হার-জিত কোনও কিছুরই প্রভাব পড়ত না ভারত ও আফগানিস্তানের এশিয়া কাপ অভিযানে৷ তবু টুর্নামেন্টের সব থেকে উত্তেজক ম্যাচ হয়ে দাঁড়ায় এটিই৷ মাঠের সেই উত্তেজনার আঁচ গিয়ে পড়ে এক খুদে সমর্থকের মনে, যা ছুঁয়ে যায় দু’দলের ক্রিকেটারদেরকেও৷

ভারতের জার্সি গায়ে এক খুদে সমর্থক অভিভাবকের সঙ্গে ম্যাচ দেখতে হাজির ছিল দুবাইয়ের গ্যালারিতে৷ ম্যাচ টাই হওয়ার পর অঝোরে কাঁদতে দেখা যায় তাকে৷ সঙ্গী অভিভাবক বহু বুঝিয়ে সুঝিয়েও তার কান্না থামাতে পারেননি৷ গোটা ঘটনাটা ক্যামেরাবন্দি করে অফিসিয়াল ব্রডকাস্টাররা৷ জায়ান্ট স্ক্রিণ ও টেলিভিশনের পর্দায় ছোট্ট অনুরাগীর কান্নার ছবি চোখে পড়ে দু’দলের ক্রিকেটারদেরই৷

আরও পড়ুন: শাস্তির ভয়ে আম্পায়ার বিতর্কে মুখ খুলতে নারাজ ধোনি

ম্যাচের শেষে আফগান ক্রিকেটাররা স্বান্তনা দিতে এগিয়ে যান ছোট্ট ভারতীয় সমর্থকের কাছে৷ রশিদ খান ও মহম্মদ শেহজাদ ছবিও তোলেন তাঁর সঙ্গে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় রশিদ ও শেহজাদের সঙ্গে ভারতীয় সমর্থকের ছবি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায়৷ এক ভারতীয় সমর্থককে আফগান ক্রিকেটারদের স্বান্তনার দেওয়ার ছবিকে দু’দেশের বন্ধুত্বের প্রতীক হিসাবেই বর্ণনা করা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷

আরও পড়ুন: ভারতীয়দের থেকে শেখা উচিৎ পাকিস্তানের: মালিক

যদিও শুধু আফগান ক্রিকেটাররাই নন, ভারতীয় শিবিরও খুদে অনুরাগীর কান্না থামাতে উদ্যোগ নেয়৷ সাপোর্ট স্টাফ মারফৎ সেই অনুরাগীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন ভুবনেশ্বর কুমার৷ হরভজন সিংয়েরও নজর এড়ায়নি ঘটনাটি৷ টার্বুনেটর টুইটারে সেই অনুরাগীকে আশ্বস্ত করেন এই বলে যে, কেঁদো না, ফাইনাল আমরাই জিতব৷ টুইটারে ভাজ্জি লেখেন, ‘কোই না পুত রোনা নহি হ্যায় ফাইনাল আপা জিতেঙ্গে’৷