লখনউ: ফের বিতর্কের নিশানায় বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়৷ স্নাতোকত্তরের ইতিহাস পরীক্ষায় প্রশ্ন এলো তিন তালাক, হালালা, পদ্মাবতী ও আলাউদ্দিন খিলজিকে নিয়ে৷ এই বিশ্ববিদ্যালয়েই দিন কয়েক আগেই রাষ্ট্রবিজ্ঞান পরীক্ষায় প্রশ্ন করা হয়েছিল কৌটিল্যর অর্থশাস্ত্রে জিএসটির মত কিছু আছে কিনা।

বিশ্ববিদ্যালয় এ সব প্রশ্নের মাধ্যমে তাঁদের ওপর ডানপন্থী মতাদর্শ চাপিয়ে দিতে চাইছে বলে সরব হয়েছেন ছাত্রছাত্রীরা। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অন্য বক্তব্য৷ তাঁরা বলছেন, এতদিন ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছে। এবার ছাত্রছাত্রীদের আসল ইতিহাস শিখতে হবে৷

পড়ুন: ৩৯জন মহিলাকে ধর্ষণ করেছিল ‘নিকাহ-হালালা এক্সপার্ট’ মৌলানা করিম

তাদের মতে, যা প্রশ্ন করা হয়েছে, তার প্রতিটিই পাঠক্রমের মধ্যে রয়েছে৷ তাহলে প্রতিবাদ কেন৷ পড়ুয়া ইচ্ছাকৃত বিষয়টি নিয়ে জলঘোলা করছে বলে মত তাদের৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের আরও দাবি, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় ও জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে বাল্য বিবাহ ও সতী প্রথা নিয়ে প্রশ্ন আসে। ইসলামেরও বহু অপূর্ণতা আছে, যেগুলির কথা বলা উচিত। যখন ইসলামের ইতিহাস পড়ানো হচ্ছে, তখন এগুলিও শেখাতে হবে। সঞ্জয় লীলা বনশালী ছাত্রছাত্রীদের ইতিহাস শিক্ষক হতে পারেন না।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আধুনিকতম বিষয়গুলি নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের ওয়াকিবহাল করতে এ ধরনের নতুন পন্থা অবলম্বন করেছে তারা।