নয়াদিল্লিঃ  ভারতের ইতিহাসে সবথেকে বড় জঙ্গি হামলা। ভয়ানক এই হামলায় শহিদ হতে হয়েছে বাংলার দুই বীর জওয়ানকে। ভয়ানক এই ঘটনার পর শহিদের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে গোটা দেশের মানুষ। সেলেব দুনিয়া থেকে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সরকার সবাই ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে।

কিন্তু বাংলার এই দুই শহিদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর জন্যে এখনও পর্যন্ত মমতা সরকার কোনও ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেনি। আর তা যাতে দ্রুত দেওয়া হয় সেই দাবিই তুলল বিজেপি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ আইপিএস অফিসার হিসেবে পরিচিত সদ্য গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়া ভারতী ঘোষ বলেছেন, মহারাষ্ট্র সরকার ইতিমধ্যেই ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে। বিহার সরকার ১১ লক্ষ টাকা। অথচ জঙ্গি হামলায় নিহত সিআরপিএফ জওয়ানদের দু’জন পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হলেও, এখনও পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কোনও ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেননি। শুধুই মোমবাতি হাতে মিছিল না করে এই জওয়ানদের পরিবার এখন কীভাবে চলবে, সেই ব্যাপারে পদক্ষেপ করতে হবে রাজ্যকে।

প্রসঙ্গত, জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ওই জঙ্গি হানায় প্রাণ হারিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বাউরিয়ার বাসিন্দা বাবলু সাঁতরা এবং তেহট্টের বাসিন্দা সুদীপ বিশ্বাস। ক্ষতিপূরণ ঘোষণা না করলেই ঘটনার পরেই ফোন করে নিহত জওয়ানের পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস ইতিমধ্যেই দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, রাজ্যের মন্ত্রীরাও শহিদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর কথা বারবার জানিয়েছেন। ফলে ভারতী ঘোষর এমন বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাকজ তৃণমূল নেতৃত্ব।