মুম্বই- কয়েক বছর ধরে অবসাদে ভুগছেন। আর তাই আত্মহত্যা প্রবন হয়ে উঠেছেন বলে জানালেন ভোজপুরী অভিনেত্রী রানি চট্টোপাধ্যায়। একটি ইনস্টাগ্রাম পোষ্টের মাধ্যমে রানি জানিয়েছেন, বহুদিন ধরেই ধনঞ্জয় সিং নামে এক ব্যক্তি তাকে হেনস্থা করছে।

একটি লম্বা ইনস্টাগ্রাম পোস্টে রানি লিখেছেন, এই ব্যক্তি তাঁর চেহারা নিয়ে নানা রকমের অশ্লীল মন্তব্য করে। তাঁকে বিভিন্ন পোস্টে মোটা, বুড়ি ইত্যাদি আপত্তিকর কথাবার্তা বলে থাকে। এই কথাগুলি তাঁকে খুবই আঘাত করে বলে জানিয়েছেন রানি চট্টোপাধ্যায়। বহু বছর ধরে ব্যাপারটি তিনি এড়িয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু এখন আর এসব গ্রহণ করতে পারছেন না।

রানি তাঁর পোস্টে লিখেছেন, “আমি বহু বছর ধরে এসব সহ্য করেছি। মানসিক ভাবে আমি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছি। এই লোকটা আসলে চায় আমি মরে যাই। এর জন্য আমার ব্যক্তিগত জীবন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।”

এরপর মুম্বাই পুলিশকে ট্যাগ করে রানি লিখেছেন যে তিনি যদি কোনো বড় পদক্ষেপ করেন, তাহলে তার জন্য দায়ী থাকবে এই ধনঞ্জয় সিংহ। সাইবার সেলেও অভিযোগ জানিয়েছেন রানি চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু সেখানে অভিযুক্তের নাম তিনি লেখেননি বলে জানা গিয়েছে।

তাই ধনঞ্জয় সিংয়ের বিরুদ্ধে তাঁরা সরাসরি কোনো রকমের পদক্ষেপ করতে পারেননি। মানসিকভাবে এতটাই বিপর্যস্ত তাই আত্মহত্যা করতে পারেন এমনও জানিয়েছেন ভোজপুরি অভিনেত্রী।

তিনি লিখছেন, “আর আমার শক্তি নেই। হয়তো আমি আত্মহত্যা করব কারণ এর জন্য বহু বছর ধরে আমি অবসাদে ভুগছি। আর সহ্য করতে পারছি না।” ধনঞ্জয় সিং এর বেশ কিছু স্ক্রিনশটও শেয়ার করেছেন রানী চট্টোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত ভোজপুরি ছবি ছাড়াও ‘খতরো কে খিলাড়ি’-র জন্যও জনপ্রিয় রানি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ