পাটনা: জোট বদল করেছে নেতা। এবার কর্মীরা করল দল বদল। তালিকায় দলের সহ সভাপতিও রয়েছেন। তবে নেতার পথে নয়, কর্মীরা গিয়েছেন অন্য শিবিরে। সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে এমনই ছবির সাক্ষী থাকল বিহার।

আরও পড়ুন- দাড়িভিটের অভিযুক্ত বিদ্যালয় পরিদর্শকের সাসপেনসন প্রত্যাহার

গত সপ্তাহেই মোদীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের হাত ছেড়েছেন রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টি(আরএলএসপি)-র প্রতিষ্ঠাতা উপেন্দ্র কুশওয়াহা। জনগণের কাজ করার জন্য তিনি হাতের প্রতীক কংগ্রেসকেই আদর্শ বলে মনে করেছেন। এবং আগামী লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

আরও পড়ুন- ভুলে ভেঙে বিজেপিতে ফিরলেন তৃণমূলের দুই পঞ্চায়েত সদস্য

উপেন্দ্র কুশওয়াহার দল বদল আসলে বিজেপি বিরোধিতার বড় সাফল্য বলে দাবি করেছিল অবিজেপি দলগুলি। আরএলএসপি নেতার দল বদল আসলে বিজেপি বিরোধী মহাজোটের বড় সাফল্য বলে দাবি করেছিল কংগ্রেস নেতৃত্ব। একই সুর শোনা গিয়েছিল রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা তেজস্বী যাদবের গলাতেও।

আরও পড়ুন- কেন্দ্রের তিন তালাক বিরোধী বিলকে স্বাগত জানাল ‘মুসলিম সমাজ’

সেই ঘটনার দিন আটেকের মধ্যেই ঘটল অঘটন। নেতা ইউপিএ শিবিরে নাম লেখালেও একদল কর্মী সহ দলের সহ সভাপতি নাম নথিভূক্ত করলেন এনডিএ শিবিরে। যার কারণে স্বভাবতোই চাপের মুখে হাত নেতৃত্বাধীন বিহারের ইউপিএ শিবির।

শুক্রবার পাটনায় আরএলএসপি-র সহ সভাপতি ভগবান সিং কুশওয়াহা জনতা দল ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে দোসর ছিলেন তাঁর একদল অনুগামী। যারা সকলেই আরএলএসপি-র নেতাকর্মী ছিলেন। এই দল ভাঙানোয় এনডিএ লাভবান হয়েছে তা বলাই বাহুল্য। আরও বড় বিষয় হচ্ছে এনডিএ-র থেকেও বেশি লাভ ওই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের। কারণ তাঁর দল শক্তিশালি হলে এনডিএ জোটে তাঁর দাপট বাড়বে।

আরও পড়ুন- ব্রিগেডে কেন যাবেন …. #PeoplesBrigade-এ বলুন সিপিএমকে

চলতি মাসেই পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশিত হয়েছে। কোনও রাজ্যেই জিততে পারেনি বিজেপি পরিচালিত এনডিএ। উলটে খোয়া গিয়েছে নিজেদের দখলে থাকা তিন রাজ্য। তারপরেই শরিক আরএলএসপি জোট ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়াটা এনডিএ এবং বিজেপির কাছে ছিল বড় ধাক্কা। সেই ক্ষতে কিছুটা হলেও প্রলেপ পড়লে এদিনের দল বদলের ঘটনায়। এই কৃতিত্ব অবশ্যই জেডিইউ নেতা তথা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের।

আরও পড়ুন- ভুলে ভেঙে বিজেপিতে ফিরলেন তৃণমূলের দুই পঞ্চায়েত সদস্য