স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: গুলি বোমার সংঘর্ষের ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে উত্তর ২৪ পরগণার ভাটপাড়া পুরসভা এলাকা। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে দুই ব্যক্তির এবং আহত হয়েছেন সাত জন৷

মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে একজন ধর্মেন্দ্র সাউ৷ তিনি বিজেপি কর্মী বলে জানা যাচ্ছে৷ অপরজন ফুচকা বিক্রেতা রামবাবু সাউ৷ আহতদের মধ্যে তিন জন বিজেপি কর্মী ও স্থানীয় বাসিন্দারা আছেন বলে সূত্রের খবর। ইতিমধ্যে আহতদের ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ তাদের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মদন মিত্রের দাবি, ভাটপাড়াতে পুলিশ ফাঁড়িটি থানায় রূপান্তরিত হোক সেটা দুষ্কৃতীরা চায় না বলেই এই তাণ্ডব শুরু হয়েছে। অন্যদিকে বিজেপি নেতা তথা ভাটপাড়া পুরসভার পুরপ্রধান সৌরভ সিং-এর অভিযোগ, পুলিশের গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে দুই জনের।

তিনি আরও বলেন, ‘‘পুলিশ এখন সাধারণ মানুষকে গুলি করে মারছে৷ পুলিশ কমিশনার অজয় ঠাকুরের নেতৃত্বে পুলিশ তল্লাশির নামে সাধারণ মানুষের উপর হামলা করছে৷ গুলি চালাচ্ছে। যারা প্রকৃত দুষ্কৃতী তাদের ধরতে পুলিশ ব্যর্থ।’’ অবিলম্বে অজয় ঠাকুরকে অপসারিত করতে হবে বলেও দাবি করেন তিনি৷

পড়ুন: মুকুলের হাত ধরে বিজেপি পরিচালিত কর্মচারি পরিষদে যোগ দিলেন দেড়শো

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায়। এই গণ্ডগোলের হাত থেকে রেহাই পায়নি ভাটপাড়া এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা। এদিকে বিজেপির দাবি, পুলিশের চালানো গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে পেশায় ফুচকা বিক্রেতা রাম বাবু সাউ-এর। অন্যদিকে পুলিশের পক্ষ থেকে বিজেপির আনা এই অভিযোগ সম্পর্কে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

পুলিশের তরফে দাবি, বৃহস্পতিবার ভাটপাড়াতে অবস্থিত পুলিশ ফাঁড়িটিকে থানায় পরিণত করা হবে৷ তাই পুলিশের তরফ থেকে একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এই অনুষ্ঠান চলাকালীন কিছু দুষ্কৃতী পুলিশ ফাঁড়িটিকে লক্ষ করে বোমা ছুঁড়তে থাকে। তখন পুলিশ ওই দুষ্কৃতীদের ধরতে বিশাল বাহিনী নিয়ে ভাটপাড়া কাঁকিনাড়া বাজার এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু করে।

সেই সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁট বৃষ্টি শুরু হয়৷ তখন পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় বলে পুলিশের তরফে দাবি করা হয়েছে। এই গণ্ডগোল চলাকালীন রামবাবু সাউ নামে এক ফুচকা বিক্রেতা মাঝখানে পরে যান৷ গুলির আঘাতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এই গুলিকে চালানোকে নিয়ে শুরু হয়েছে দোষারোপ পালটা দোষারোপ।

এদিকে এই ঘটনার পর থেকেই ভাটপাড়া কাঁকিনাড়া বাজার এলাকা অঘোষিত বনধের চেহারা নিয়েছে। এমনকি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ভাটপাড়া পুরসভার এলাকা সংলগ্ন ঘোষ পাড়া রোড। কোন গাড়ি বা বাসকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না৷