স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: জুনিয়র চিকিৎসকদের উস্কানি দেওয়ার একটি অডিও বার্তা ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷তৃণমূলের অভিযোগ, অডিও বার্তায় যাঁর গলার স্বর শোনা যাচ্ছে তিনি লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির পরাজিত প্রার্থী তথা প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষ৷ যদিও এই অডিও বার্তার সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা 24×7।

দু’মিনিট নয় সেকেন্ডের একটি অডিও বার্তা প্রকাশ্যে এসেছে৷ যেখানে শোনা গিয়েছে জুনিয়র চিকিৎসকদের আন্দোলনের রূপরেখা নিয়ে এক মহিলা কণ্ঠ পরামর্শ দিচ্ছেন৷ তিনি বলছেন, সাধারণ মানুষের সহানুভূতি হারানোর আগেই জুনিয়র চিকিৎসকদের বৈঠকে বসতে হবে। ক্রমশই জুনিয়র চিকিৎকরা মানুষের সহানুভূতি হারিয়ে ফেলতে পারে আরও আন্দোলন দীর্ঘতর করলে। আর এই অডিও বার্তার পর কয়েক ঘন্টার মধ্যেই সাংবাদিক বৈঠক করে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করেন আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকরা৷

রবিবার এনআরএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জুনিয়র চিকিত্সকরা দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন। তার পর তাঁরা জানান, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁরা বৈঠকে রাজি। তবে ওই বৈঠকে সমস্ত মেডিক্যাল কলেজের জুনিয়র চিকিত্সকদের প্রতিনিধিদের উপস্থিত রাখতে হবে। আর বৈঠক হতে হবে মিডিয়ার উপস্থিতিতে।

নবান্ন সূত্রে খবর, আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিত্সকদের এই দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে। পশ্চিমবঙ্গের ১৪টি মেডিক্যাল কলেজ থেকেই জুনিয়র চিকিত্সকদের প্রতিনিধিদের ডাকা হচ্ছে। বৈঠকে প্রতিটি মেডিক্যাল কলেজের জুনিয়র চিকিত্সদের দু’জন করে প্রতিনিধিকে ডাকা হচ্ছে।

তবে এই ভাইরাল অডিও বার্তা এবং জুনিয়র চিকিৎসকের অবস্থানের মধ্যে বহু মিল খুঁজে পাচ্ছেন অনেকেই। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সাফ জানিয়েছেন, ওই অডিও বার্তা ভারতী ঘোষের নয়। ভারতী ঘোষের দাবি, এটা তার গলা নয়। কেউ ভয়েস মডিউলেশন ব্যবহার করে তাকে বদনাম করার চেষ্টা করেছে। তিনি এই নিয়ে সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।