কলকাতাঃ ফের আন্তর্জাতিক সীমান্ত লাগোয়া এলাকা থেকে ভারতীয় কৃষকদের অপহরণের ঘটনায় অভিযুক্ত বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ। গত বছর কোচবিহারের কুচলিবাড়িতে এমনই ঘটনা ঘটেছিল। এবার মুর্শিদাবাদ জেলার রানিনগরের বামনাবাদে দুই ভারতীয় কৃষককে তুলে নিয়ে যাওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। কিন্তু কি কারণে এই ঘটনা? কেন এমন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতীয় ভুখন্ডে ঢুকে পড়ল বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী।

পড়ুন আরও- ব্রেকিং: ফের বিজিবি ভারতীয় কৃষকদের তুলে নিয়ে গেল

ঘটনাস্থলে থাকা এক কৃষক জানিয়েছেন, প্রত্যেকদিনের মতোই সমস্ত কৃষকরাই নিজেদের নাম বামনাবাদ বর্ডার আউটপোস্টের ৩ নম্বর পয়েন্টে লিখিয়ে দিয়ে চরে কাজে যাই। নয়ন এবং সাহিদুলও আমাদের সঙ্গে গিয়েছিল। তাঁরা আমাদের থেকে একটু দূরে জমিতে কীটনাশক দেওয়ার কাজ করছিল।

ওই কৃষক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, যেখানে তাঁরা কাজ করছিলেন সেটি বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে। হঠাত করেই কয়েকজনকে বন্দুক নিয়ে এগিয়ে আসতে দেখা যায়।

তাঁর দাবি, প্রথমে তাঁরা যে বাংলাদেশের বাহিনী বোঝা যায়নি। হঠাত করেই তাঁদের সাইকেল, কীটনাশকের মেশিন নিয়ে তারা নিয়ে বাংলাদেশের দিকে চলে যেতে থাকে বলে অভিযোগ কৃষকদের। আর সেই সময় ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করা হয়। ভারতীয় ভুখন্ডে ঢোকা নিয়েও প্রতিবাদ জানানো হয়। আর প্রতিবাদ করতেই নয়ন ও সাইদুলকে ধরে নিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী চলে যায় বলে দাবি ওই কৃষকদের।

অভিযোগ, সীমান্ত থেকে ভারতের ভূখণ্ডে প্রায় ১ কিলোমিটার ঢুকে দুজনকে তুলে নিয়ে যায় বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা। কৃষকদের দাবি, একাধিকবার বিএসএফকে সীমান্ত চিহ্নিত করে দেওয়ার জন্যে বলা হয়েছিল। কিন্তু তা করা হয়নি বলে অভিযোগ।

এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক দক্ষিণবঙ্গ বর্ডার ফোর্সের আধিকারিক এস.এস.গুলারিযা জানিয়েছেন, এলাকাটি ১১৭ নম্বর ব্যাটালিযানের মধ্যে পড়ে। সীমান্ত এই এলাকায় সর্বদা হাই-অ্যালার্টেই থাকেন জওয়ানরা। প্রতি মুহূর্তে পাহাড়া চলে। কিন্তু এরপরেও কীভাবে এই ঘটনা তা খতিয়ে দেখার আশ্বাস বিএসএফ কর্তার। একই সঙ্গে কৃষকদের ছাড়া নিয়ে বাংলাদেশের বাহিনীর সঙ্গে আলোচনা করা হবে বলেও জানান তিনি।

বিজিবি রক্ষীদের হাতে আটক দুই কৃষকের নাম নয়ন শেখ ও সাইদুল ইসলাম। সীমান্তের ওপারে বাংলাদেশের রাজশাহী। এপারে মুর্শিদাবাদ জেলার আন্তর্জাতিক সীমান্তের কাছে ভারতীয় ভূখণ্ডে চাষ করছিলেন নয়ন ও সাইদুল। জলঙ্গীর বাসিন্দা তাঁরা। অপহৃত দুই ভারতীয় কৃষককে দেশে ফেরানোর বিষয়ে বিএসএফ ও জেলা প্রশাসনের দ্বারস্থ আত্মীয়রা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, বাংলাদেশে আটকে রাখা নয়ন শেখ ও সাইদুল ইসলামকে দেশে ফেরানোর ব্যাপারে কথা চলছে। তাদের ফিরিয়ে আনার জন্যে বিএসএফ ও বিজিবির মধ্যে পতাকা বৈঠকের উদ্যোগ চলে বলে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে।

ফাইল ছবি

বিজিবি কমান্ডিং অফিসারদের সঙ্গে কথা বলছেন বিএসএফ অফিসাররা। গত বছর অগস্ট মাসে কোচবিহারের কুচলিবাড়ি সীমান্তের কাছে ভারতীয় কৃষক জগবন্ধু রায়কে অপহরণ করেছিল বিজিবি।পরে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনির আলোচনায় জট কাটে। ফিরে আসেন ওই কৃষক। তার আগে সীমান্ত পেরিয়ে দুই বাংলাদেশির অনুপ্রবেশ আটকেছিল বিএসএফ। সম্প্রতি বাংলাদেশের দিক থেকে বেশ কয়েকবার অনুপ্রবেশ আটকে দেয় বিএসএফ। গুলিও চালায়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ