বাজারের চাকরির অবস্থা বিশেষ ভালো না, তাই এখন অনেকেই ঝুঁকছেন ব্যবসার দিকে। আপ্নারো তেমন কোনও সুপ্ত ইচ্ছে রয়েছে নাকি? তবে আপনাকে সাহায্য করতে প্রস্তুত সরকার। ছোট হোক বা বড়, আপনি স্বপ্ন যখন দেখেই ফেলেছেন, তখন কেন্দ্রীয় সরকার আপনাকে সহায়তা করতে প্রস্তুত। আর্থিক ভাবে আপনাকে সাহায্য করতে প্রস্তুত রয়েছে মোদী সরকার। এতে আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী লোন নিতে পারবেন।

মুদ্রা লোন: প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনার আওতায় দেশের যুবসমাজকে তাদের নিজস্ব ব্যবসা শুরু করার জন্য কোনও গ্যারান্টি ছাড়াই ব্যাংক থেকে লোন দেওয়া হয়। ২০১৫ সালের এপ্রিলে এই প্রকল্প চালু হয়েছিল। মুদ্রা লোনে তিন ভাগে লোন দেওয়া হয়। যথা : শিশু মুদ্রা লোন, এই এর আওতায় ৫০ হাজার টাকা অবধি লোন পাওয়া যায়। কিশোর মুদ্রা লোন: এর আওতায় ৫০ হাজার থেকে ৫ লক্ষ টাকা অবধি লোন পেতে পারেন। তরুণ মুদ্রা লোন: এর আওতায় সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা অবধি লোন দেওয়া হয়ে থাকে।

স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া যোজনা: তফসিলি জাতি, উপজাতি এবং মহিলা উদ্যোক্তাদের উত্সাহিত করার জন্য স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া যোজনা চালু করা হয়। ২০১৬ সালে এই স্কিম শুরু করা হয়েছিল। বহু মানুষ এই লোন নিয়েছেন। সরকারি হিসেব বলছে, এখন অবধি এই প্রকল্পের আওতায় ২৫ হাজার কোটি টাকারও বেশি লোন অনুমোদিত হয়েছে।

MSME লোন : গত বছর করোনার সময় আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের আওতায় এমএসএমইগুলিকে সাহায্য করতে তিন লক্ষ কোটি টাকা লোন দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছিল। ২০২১ সালের ৩১ মার্চ এই স্কিমের মেয়াদ একবার শেষ হয়ে যায়। কিন্তু ফের এটিকে ৩০ জুন অবধি বাড়ানো হয়েছে।

স্বনিধি যোজনা: পুঁজির অভাবে যদি কোনও হকার রাস্তায় ঠেলা লাগাতে না পারে, সে জন্য ১০ হাজার টাকার গ্যারান্টি ছাড়াই লোন দিচ্ছে সরকার। এই স্কিমের নাম প্রধানমন্ত্রী স্বনিধি যোজনা। সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হ’ল এই প্রকল্পের আওতায় লোন পেতে হলে কোনও গ্যারান্টি দেওয়ার দরকার নেই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।