নিউজ ডেস্ক : এই তীব্র দহন দিনে অনেকেই গলা ভেজানোর জন্য বেছে নেন ঠান্ডা পানীয়। ঠাণ্ডা পানীয় তেষ্টা মেটায় বটে, কিন্তু বেশি পরিমাণে ঠাণ্ডা পানীয় পান করলে তা শরীরের জন্য ডেকে আনতে পারে মারাত্বক বিপদ। তাহলে তেতেপুড়ে এসে মশাই একটু রেহাই পাব কি করে! প্রশ্ন নিশ্চয়ই মনে উঁকি দিচ্ছে! ভাবুন, ভাবুন, ভাবা প্র্যাকটিস করুন। আপনার হাতের কাছেই আছে প্রাকৃতিক পানীয় ‘ডাব’। যা প্রখর রৌদ্রে পান করলে তৃষ্ণা তো মিটবেই। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যের ক্ষতি তো হবে না বরং ভালো থাকবে শরীর।

আসুন প্রচণ্ড গরমে ডাবের জল খাওয়ার কয়েকটি আশ্চর্য সুফল সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক –

শক্তি বৃদ্ধি : ডাবের জলে থাকা কার্বোহাইড্রেড শরীরে শক্তির ঘাটতিও পূরণ করে। তাই ডাব শুধু তৃষ্ণাই নয়, শক্তির ঘাটতি মিটিয়ে ক্লান্ত শরীরকে চাঙ্গা করে তোলে।

ডি-হাইড্রেশন রোধ : প্রচণ্ড গরমে শরীরে ঘামের সঙ্গে অনেকটা জল বেরিয়ে যায়। শরীরে দেখা দেয় জলের ঘাটতি। ফলে ডি-হাইড্রেশনের সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। এই সমস্যা থেকে বাঁচাতে ডাবের জল অত্যন্ত উপকারী।

ডায়েট ড্রিঙ্ক : ডাবের জলে যেহুতু চিনি খুব কম থাকে, তাই সহজেই ওজন কমাতে সাহায্য করে। ফাইবারে ভরপুর ডাবের জল খাবার দ্রুত হজম করতে সাহায্য করে।

ডায়াবেটিস প্রতিরোধ : ডাবের জল রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। তাই এই গরমে ডায়াবিটিক রোগীদর জন্য ডাবের জল খুবই উপকারী।

রক্তচাপ রোধ : গরমের তীব্র দাবদাহে রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে। অতিরিক্ত ঘামের সঙ্গে অনেকটা জল বেরিয়ে যাওয়ায় রক্তচাপ অস্বাভাবিকভাবে কমে যেতে পারে। ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখতে ডাবের জল অত্যন্ত কার্যকরী। ডাবের জলে থাকা ভিটামিন সি, ম্যাগনেসিয়াম আর পটাশায়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। গরমে কচি ডাবের জল শরীরকে ঠান্ডা রাখার পাশাপাশি শরীরে পটাশিয়াম, সোডিয়ামের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।