কলকাতা: সিনেমা দেখানোর দাবি নিয়ে এবার মিছিলে হাঁটলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেন, বুদ্ধদেব দাশগুপ্তেরা। গত মাসে কলকাতার কিছু হলে অনীক দত্ত পরিচালিত ‘ভবিষ্যতের ভূত’ মুক্তি পেলেও তার পরের দিন থেকে অজানা কারণে ওই ছবি প্রদর্শনবন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ সেন্সারে পাশ হওয়া ছবিটি শহরতলীতে চললেও কোনও এক ভুতুড়ে কারণে কলকাতায় প্রদর্শন বন্ধ রাখায় প্রশ্ন উঠেছে নানা মহলে৷

ওই ছবি দেখানোর দাবি তুলে চলচ্চিত্র জগতের মানুষের একাংশ ইতিমধ্যেই প্রতিবাদ সভাও করেছেন ৷ রবিবার ফের সেই একই দাবিতে পথে নামলেন সিনেমা জগতের কলাকুশলীদের একাংশ৷

এদিন ঢাকুরিয়ায় মধুসূদন মঞ্চের সামনে প্রায় শ’দুয়েক মানুষ বাংলা সিনেমার এই তিন ব্যক্তিত্বকে সামনে রেখে সভা ও মিছিল করলেন৷৷ এ ভাবে ছবি প্রদর্শন বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরও অনেকের মধ্যে কোনও হেলদোল না থাকায় এদিন হতাশা প্রকাশ করেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।

অপর্ণা সেন প্রশ্ন তোলেন, একটা গণতান্ত্রিক দেশে এটা কেমন করে সম্ভব হচ্ছে ? তাঁর মতে, বাক স্বাধীনতা হল মৌলিক অধিকার আর সেটাতে হস্তক্ষেপ হচ্ছে বলেই তিনি প্রতিবাদ করছেন। পুরো ঘটনাকে ফ্যাসিজিমের শুরু বলে হয়েছে তাঁর। বিশেষত এই ইস্যুতে আর্টিস্ট ফোরাম বা ইম্পা ভূমিকা নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন ৩৬ চৌরঙ্গি লেনের পরিচালক৷ তিনি মনে করিয়ে দেন , নন্দীগ্রামে যখন মানুষকে মেরে ফেলা হয়েছিল তখন তার বিরুদ্ধে পথে নেমেছিলেন কিন্তু কোনওদিনই তাঁর মধ্যে কোনও রাজনৈতিক রং ছিল না।

এই ইস্যুতে এখানকার টলিউডের নামী অভিনেতা অভিনেত্রীদের অনেকেকই দেখা যায়নি৷ তাই পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের অভিমত, এখানে বাংলা ছবির জগতের অনেকে এসেছেন প্রতিবাদ জানাতে কিন্তু আরও অনেকের আশা উচিত ছিল। তিনি চলচ্চিত্র জগতের একাংশ যারা এখন গা বাঁচিয়ে চলছেন তাদের ভূমিকার সমালোচনা করেছেন৷