কলকাতা: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের জন্য এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে সংববর্ধনা দেওয়ার ভাবনা বাঙালি উদ্বাস্তু সংগঠনের। সিএএ-র জন্য আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন উদ্বাস্তু বাঙালিদের সংগঠন। এবার আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে কর্নাটকে বাঙালি উদ্বাস্তু সংগঠনের কর্মসূচিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। সেই অনুষ্ঠানেই সংবর্ধনা জানানো হবে অমিত শাহকে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে একদিকে যখন কেন্দ্রীয় সরকারকে কাঠগড়ায় তুলছে বিজেপি-বিরোধীরা অন্যদিকে এই আইন নিয়ে আনন্দে ভাসছে ভিনরাজ্যের নিখিল ভারত বাঙালি উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতি। এই সংগঠনের কর্নাটক শাখা ফেব্রুয়ারিতে রাইচুরে তাদের সম্মেলনের আয়োজন করেছে। সেখানেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে।

বাংলা ছাড়াও সারা ভারতের যে সব জায়গায় বাঙালি উদ্বাস্তুরা রয়েছেন, তাঁদের নিয়েই কাজ করে নিখিল ভারত বাঙালি উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতি। উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব দেওয়ার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে চলেছে এই সংগঠনটি। আর তাই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন চালু করায় সংস্থার তরফ থেকে ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে।

নিখিল ভারত বাঙালি উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতির তরফে জানানো হয়েছে, কয়েক দশক ধরে নাগরিকত্বের জন্য দাবি জানিয়ে আসা বাঙালি উদ্বাস্তুদের কথা শুনেছে মোদী সরকার। সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে সংবর্ধনা দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সংগঠনের কর্নাটক শাখার তরফে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে রাইচুরে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। সেই সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে অমিত শাহকে। ওই সম্মেলনেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন তৈরির জন্য সংবর্ধনা দেওয়া হবে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব বিরোধীরা। ইতিমধ্যেই দেশের মধ্যে প্রথম রাজ্য হিসেবে সিএএ-র বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেছে বাম-শাসিত কেরল। একইভাবে কেরল বিধানসভাতেও পাশ হয়েচএ সিএএ বিরোধী প্রস্তাব। একই প্রস্তাব পাশ হয়েছে পঞ্জাব ও রাজস্থান বিধানসভাতেও। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভাতেও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব পাশ করানো হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ