জয়পুর: দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বাংলাকে জয় এনে দিলেন মনোজ তিওয়ারি। বিজয় হাজারে ট্রফির ম্যাচে ত্রিপুরাকে ৫ উইকেটে পরাজিত করল অভিমন্যু ঈশ্বরনের নেতৃত্বাধীন বাংলা দল।

জয়পুরের কেএল সাইনি মাঠে টস জিতে ত্রিপুরাকে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় বাংলা। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৪৯ ওভারে ২২৪ রানে অল-আউট হয়ে যায় ত্রিপুরা। তন্ময় মিশ্র লড়াকু হাফ-সেঞ্চুরি করেন। তাঁকে যথাযোগ্য সঙ্গত করেন মিলিন্দ কুমার। শেষ দিকে ক্যাপ্টেন মুরাসিং ব্যাট চালিয়ে কার্যকরী যোগদান রাখেন।

বাংলা এদিন দলের সেরা বোলার অশোক দিন্দাকে মাঠের বাইরে রেখে দল নামায়। যদিও দিন্দার অভাব টের পেতে দেননি ইশান পোড়েল, আকাশ দীপ, শাহবাজ আহমেদরা। মনোজ তিওয়ারিও বল হাতে নজর কাড়েন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলা ৪৭.১ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২২৭ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। ধৈর্যশীল ব্যাটিংয়ে মনোজ তিওয়ারি দলকে জয়ের ভিতে বসিয়ে দেন। অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন অগ্নিভ পান। মুরাসিং ছাড়া তেমন একটা প্রভাবশালী বোলিং করতে পারেননি ত্রিপুরার আর কোনও বোলারই।

মাত্র ২৫ রানের মধ্যে ত্রিপুরা তাদের দুই ওপেনারকে হারিয়ে বসে। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে তন্ময় মিশ্র ৯৯ বলে ৭২ রানের ইনিংস খেলে দলকে দু’শো রানের গন্ডি পার করতে সাহায্য করেন। তিনি ৮টি বাউন্ডারি মারেন। মিলিন্দ কুমার ৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৬ বলে ৪৩ রান করেন। মুরাসিং ২টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ২৭ বলে ৩০ রান করে সাজঘরে ফেরেন।

ইশান পোড়েল ৪৫ রানে ২টি উইকেট নেন। আকাশ দীপ ২৯ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট দখল করেন। পাঁচ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৩৩ রান খরচ করে ২টি উইকেট তোলেন মনোজ তিওয়ারি। এছাড়া ১টি করে উইকেট পেয়েছেন অয়ন ভট্টাচার্য্য, শাহবাজ আহমেদ ও অর্ণব নন্দী।

পালটা ব্যাট করতে নেমে বাংলাও ৩৫ রানের মধ্যে টপ অর্ডারের দু’জন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসে। শ্রীবৎস গোস্বামী ৭ ও অভিষেক রামন ৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ক্যাপ্টেন অভিমন্যু ৩৪ রান করে ক্রিজ ছাড়েন। অগ্নিভ পানকে সঙ্গে নিয়ে মনোজ তিওয়ারি দলকে জয়ের লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যান। চতুর্থ উইকেটের জুটিতে দু’জনে মিলে ১১৫ রান যোগ করেন। শেষে মনোজ আউট হন ৮৫ রান করে। ১০৩ বলের ইনিংসে ৭টি বাউন্ডারি মারেন মনোজ। অগ্নিভ পান আউট হন ৪টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৭৮ বলে ৫৭ রান করে।

শাহবাজ আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে বাংলার জয় নিশ্চিত করেন ঋত্বিক রায় চৌধুরী। শাহবাজ ৭ ও ঋত্বিক ব্যক্তিগত ২১ রানে অপরাজিত থাকেন। মুরাসিং ৩২ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট দখল করেন।