বসিরহাট: অশান্ত বসিরহাট পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশি বাধার মুখে পড়ল প্রদেশ কংগ্রেস ও বিজেপি এবং বামেদের বিশেষ একটি প্রতিনিধিলকে৷ এদিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন প্রদেশ সভাপতি অধীর চৌধুরী, বিজেপি সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দল এবং মহম্মদ সেলিমের নেতৃত্বে বামেদের প্রতিনিধি দল বসিরহাট যাওয়ার চেষ্টা করেন৷

    • বসিরহাটের অনেক আগেই মধ্যমগ্রামে আগে থেকেই ব্যারিকেড করে রাখে পুলিশ৷ আজ সকালে বিজেপির প্রতিনিধিদলের সদস্যদরা সেখানে গেলে তাঁদের আটকানো হয়। পুলিশের সঙ্গে তাঁদের ধস্তাধস্তিও হয় বলে অভিযোগ। প্রায় ৪৫মিনিট ধরে চলে উত্তেজনা৷
    • জোর করে বসিরহাটের নিয়ে যাওয়ার জন্য রূপা-লকেটকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷

    • বারাসত ঢোকার আগে দমদমের মাইকেল নগরের কাছে বিজেপিকে আটকায় পুলিশ৷
    • বসিরহাট ঢোকার সমস্ত রাস্তায় চলছে পুলিশি নজরদারি৷ এখনও থমথমে বসিরহাট। চলছে পুলিশ-আধা সেনার টহল। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী নিজেই সমস্ত বিরোধী দলের প্রতিনিধিদের বসিরহাট যেতে নিষেধ করেন৷ মুখ্যমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া না দিয়ে আজ সকালে বসিরহাট রওনা দেয় কংগ্রেস-সিপিএম-বিজেপি। ফলে, বিরোধীদের আটকাতে প্রতিটি মোড়ে চলছে কড়া পুলিশি নজরদারি৷ মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনাী৷
    • বাসিরহাটের পথে রওনা বিজেপির প্রতিনিধি দলের৷
    • বারাসতেই কংগ্রেসকে আটকাল পুলিশ৷
    • বামেদের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন সিপিএম সাংসদ মহম্মদ সেলিম৷ জানা গিয়েছে, পুলিশি বাধার মুখে পড়ে বারাসতে ফিরে আসছেন বাম নেতারা৷ প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বিধানসভায় সিপিএমের দলনেতা সুজন চক্রবর্তী, বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য, ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়সহ আরও বেশ কয়েকজন।

  • সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আবেদন নিয়ে বসিরহাটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। প্রদেশ কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলে অধীরের নেতৃত্বে থাকবেন বিধায়ক আক্রুজ্জমান, কাজি আবদুর রহিমসহ পরিষদীয় দলের বেশ কিছু সদস্য৷ থাকবেন প্রদেশ কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা রাজ্যসভার সদস্য প্রদীপ ভট্টাচার্য৷
  • আজ শুক্রবার বসিরহাট যাচ্ছে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরির নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস প্রতিনিধি দল।
  • পুলিশি বাধা পেয়ে শাসন থেকে বারাসতে ফিরছে বাম প্রতিনিধি দল৷ বারাসতে অবস্থান বিক্ষোভে বসতে পারেন বাম নেতারা৷
  • বসিরহাট যাওয়ার পথেই বামপ্রতিনিধি দলকে আটকাল পুলশ৷ শাসনের কাছে বাম প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে থাকা মহম্মদ সেলিম ও সুজন চক্রবর্তীকে আটকে দেয় পুলিশ৷

 

 

গত কয়েকদিন ধরে উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার বিভিন্ন প্রান্তে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তার মোকাবিলায় রাজ্য পুলিশের পাশাপাশি কেন্দ্রের আধাসামরিক বাহিনীকে নামাতে বাধ্য হয় রাজ্য সরকার। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আবেদন নিয়ে বসিরহাটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। সেই উদ্দেশ্যেই আজ সকাল ১১টায় বসিরহাট যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান অধীর৷ চলতি অশান্তি শুরু হয়েছিল বাদুড়িয়া থেকে।

ঘটনাচক্রে বাদুড়িয়ার বিধায়ক কংগ্রেসের কাজি আবদুর রহিম। তাঁর মতে, পুলিশ প্রশাসন আরও শক্ত ও তৎপর হলে পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হতে পারে। দলীয় রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে সম্প্রীতির বার্তা দিয়েই শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে চায় কংগ্রেস। এই প্রতিনিধি দলে বিধায়ক আক্রুজ্জমান, কাজি আবদুর রহিমসহ পরিষদীয় দলের বেশ কিছু সদস্যের থাকার কথা। প্রদেশ কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা রাজ্যসভার সদস্য প্রদীপ ভট্টাচার্যও থাকবেন এই প্রতিনিধি দলে।