কটক: রঞ্জি ট্রফিতে না-হলেও মুস্তাক আলি জাতীয় টি-২০ টুর্নামেন্টের মূলপর্বে পৌঁছল বাংলা৷ শনিবার কটকে গ্রুপের শেষ ম্যাচে ওডিশাকে হেলায় হারিয়ে জাতীয় টি-২০ টুর্নামেন্টের সুপার লিগে জায়গা করে নেন মনোজ-ঋদ্ধিরা৷ এই জয়ের ফলে গ্রুপ-ডি থেকে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করে বাংলা৷

গ্রুপের সব ক’টি ম্যাচ জিতে শীর্ষস্থান শেষ করেছে কর্নাটক৷ সাত ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ২৮৷ আর সাত ম্যাচের পাঁচটি জিতে ২০ পয়েন্ট নিয়ে সুপার লিগে যোগ্যতাঅর্জন করে বাংলা৷ গ্রুপের শেষ ম্যাচ এদিন ওডিশাকে ৮ উইকেট হারায় মনোজ অ্যান্ড কোং৷ বল হাতে কামাল দেখান ঈশান পোড়েল৷ ৪ ওভারে মাত্র ১৯ রান খরচ করে তিনটি উইকেট তুলে নেন তিনি৷ অয়ন ভট্টাচার্য ৪ ওভারে মাত্র ১৩ রান দিয়ে ২টি উইকেট নেন৷

প্রথম বোলিং করে ওডিশাকে ১০৮ রানে বেঁধে রাখে বাংলার বোলাররা৷ অল্প রান তাড়া করতে নামায় কোনও বেগ পেতে হয়নি বাংলাকে৷ ঋদ্ধিমান সাহার হাফ-সেঞ্চুরি এবং অভিমন্য ঈশ্বরন ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে ৪৪ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে নেয় মনোজরা৷ ৩১ বলে পাঁচটি বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় ৫২ রানের ইনিংস খেলেন ঋদ্ধিমান৷ আর ৩১ বলে ৩৩ রানের অপরাজিত থাকেন ঈশ্বরন৷

মূলপর্বে উঠে বাংলা অধিনায়ক মনোজ তিওয়ারি বলেন, ‘নিজেদের দক্ষতায় সুপার লিগে কোয়ালিফাই করায় দারুণ খুশি৷ আজ আমরা দারুণ খেলেছি৷ ঈশান ও অয়ন ধারাবাহিকতা দেখিয়েছে৷ শেষ দু’টি ম্যাচে ব্যাটসম্যানরাও দারুণ খেলেছে৷ ঋদ্ধিমান আজও দারুণ ইনিংস খেলল৷ ঈশরনের সঙ্গে পার্টনারশিপ গড়ে আমাদের সহজ জয় এনে দেয়৷’

কাঁধের অস্ত্রোপচারের পর রি-হ্যাবে থেকে এই টুর্নামেন্টে বাংলার হয়ে মাঠে ফেরেন জাতীয় দলের বাঙালি উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান৷ এর অরুণাচল প্রদেশের বিরুদ্ধে ৬২ বলে ১২৯ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেছিলেন ঋদ্ধিমান৷ আইপিএলের ঠিক আগে টি-২০ ফর্ম্যাটে নিজেকে ঝালিয়ে নিলেন বাংলার এই তারকা ক্রিকেটার৷