কলকাতা: ২০১৭-১৮ শেষবার মনোজ তিওয়ারির নেতৃত্বে রঞ্জির সেমিফাইনাল খেলেছিল বাংলা। কিন্তু দিল্লির কাছে ইনিংসে হেরে ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন শেষ হয়েছিল দু’বারের চ্যাম্পিয়নদের। দু’বছর বাদে এসে একাদশে রয়েছেন সেই দলের অধিকাংশ ক্রিকেটারই। কিন্তু নেতৃত্ব হাতবদল হয়ে এসেছে অভিমন্যু ঈশ্বরণের কাছে। এবার সামনে প্রতিপক্ষ শক্তিশালী কর্ণাটক। তবে দু’বছর আগের ভুল শুধরে ২০০৬-০৭’র পর রঞ্জির ফাইনালে যেতে বদ্ধপরিকর বাংলা।

সেই লক্ষ্যে শেষ চারে কর্ণাটকের বিরুদ্ধে ১৬ সদস্যের স্কোয়াড অপরিবর্তিতই রাখল বাংলা। এমনকি কোয়ার্টার ফাইনালের উইনিং কম্বিনেশনেও রদবদলে বিশেষ পক্ষপাতী নয় বাংলা শিবির। তবু সেমিফাইনালে একাদশে একমাত্র পরিবর্তন ঘটিয়ে কামব্যাক প্রায় নিশ্চিত আকাশদীপের।

প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকার সুবাদে কোয়ার্টার ফাইনালে বাধা টপকে সহজেই সেমিফাইনালে পা রেখেছে ঈশ্বরণ অ্যান্ড কোম্পানি। অন্যদিকে, শেষ আটের লড়াইয়ে জম্মু-কাশ্মীরকে ১৬৭ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে শেষ চারে করুণ নায়ার ব্রিগেড। তার উপর বাংলার বিরুদ্ধে কর্ণাটক দলে ফিরছেন জাতীয় দলের ইউটিলিটি ব্যাটসম্যান কেএল রাহুল। তাই লড়াই যে খুব সহজ হবে না, সেটা ভালোই জানে বাংলা দল।

তবে ঘরের মাঠে ম্যাচ হওয়ায় সুবিধা আদায় করে নিতে পারে বাংলা। আর ঘরের মাঠে মনোজ-অনুষ্টুপদের তাতাতে মাঠ ভরানোর ডাক দিলেন নয়া সিএবি সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া। প্রথম এবং দ্বিতীয় ডিভিশনের সমস্ত ক্লাব, জেলা দল, বিদ্যালয় স্তরের ক্রিকেটারদের ইডেনে এসে বাংলাকে সমর্থন করার ডাক দিলেন জগমোহন ডালমিয়া তনয়।

নয়া সিএবি সভাপতি জানিয়েছেন, ‘আমরা প্রথম এবং দ্বিতীয় ডিভিশন ক্লাবগুলোর কাছে আর্জি জানিয়েছি তাদের ক্রিকেটারদের যেন তারা মাঠে আসার ব্যবস্থা করে দেন। এছাড়া জেলার দল এবং বিদ্যালয় স্তরের ক্রিকেটারদেরও মাঠে এসে বাংলাকে সমর্থন করার আর্জি জানিয়েছি আমরা।’

একনজরে বাংলা স্কোয়াড: অভিমন্যু ঈশ্বরণ (অধিনায়ক), মনোজ তিওয়ারি, অনুষ্টুপ মজুমদার, শ্রীবৎস গোস্বামী (উইকেটরক্ষক), সুদীপ চট্টোপাধ্যায়, অভিষেক রমন, কৌশিক ঘোষ, অর্ণব নন্দী, শাহবাজ আহমেদ, অগ্নিভ পান, ইশান পোড়েল, শ্রেয়ান চক্রবর্তী, নীলকান্ত দাস, মুকেশ কুমার, আকাশ দীপ ও গোলাম মোস্তাফা।