নিউজডেস্ক, কলকাতা: ১০-১৫ বছর আগে বিহারের যে অবস্থা ছিল, পশ্চিমবঙ্গে এখন সেরকমই অবস্থা। এমনটাই দাবি করলেন নির্বাচন কমিশন নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক।

গত দু’দফায় চলেছে গুলি, ছোঁড়া হয়েছে বোমা। সামনেই তৃতীয় দফার ভোট। আর তার আগে অজয় নায়েক বললেন, ”১০ বছর আগে বিহারে যে অবস্থা ছিল, বাংলায় এখন সেরকমই অবস্থা। বিহারের মানুষ ও রাজনৈতিক দল বুঝে গিয়েছে যে, মারপিট করে নির্বাচন হয় না। কিন্তু, পশ্চিমবঙ্গে সেটা এখনও কেউ বোঝেনি। বিহার যা পেরেছে, পশ্চিমবঙ্গ তা আজও পারেনি।”

তিনি আরও বলেন যে, রাজ্যের মানুষের পুলিশের উপর কোনও আস্থা নেই। তাই তারা প্রত্যেক বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী চাইছে। সেজন্যই তৃতীয় দফায় রাজ্যে ৯২ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ফাইল ছবি

এর আগে বিহারে বিশেষ পর্যবেক্ষক ছিলেন তিনি। চলতি সপ্তাহে পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশন থেকে। রাজ্যের নির্বাচন নিয়ে একগুচ্ছ অভিযোগ জমা পড়ার পরই তাঁকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

অজয় নায়েক বলেন, “এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়া নির্বাচন সম্ভব নয় ।” নির্বাচন কমিশন নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষকের বক্তব্য, “বিহারের ২০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে। আর সেখানে বাংলার ৯২ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এটা গণতন্ত্রের জন্য ভালো নয়।”

পরে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর থেকে বেরোনোর সময় অজয় নায়েক বলেন, “দ্বিতীয় দফায় যা দেখেছি, তাতে বলতে পারি পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে । নির্বাচন সামলানোর ক্ষেত্রে বাংলাও উন্নতি করছে। আমার আশা, পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের সময় এত সংখ্যক কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দরকার হবে না।” তাঁর দাবি, বাকি পাঁচ দফায় রাজ্যে ভোট শান্তিপূর্ণ হবে।