কলকাতা: একশো দিনের কাজে আবারও সেরার শিরোপা ছিনিয়ে নিল পশ্চিমবঙ্গ। একশো দিনের কাজের প্রকল্পে সেরা জেলা নির্বাচিত বাঁকুড়া জেলা, তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে কোচবিহার এই নিয়ে পরপর চারবার একশো দিনের কাজের প্রকল্পে দেশের বাকি রাজ্যগুলিকে পিছনে ফেলে সেরার শিরোপা ছিনিয়ে নিল পশ্চিমবঙ্গ। গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের ঘোষণা অনুযায়ী এবারও একশো দিনের কাজের প্রকল্পে সেরা বাংলা।

বাংলার এই কৃতিত্বে স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যবাসীকে লিখিত বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের ঘোষণা অনুযায়ী একশো দিনের কাজে দেশের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে বাংলা। বাংলা একশো দিনের কাজে সেরার সেরা হওয়ায় ও জাতীয় স্তরে স্বীকৃতি পাওয়ায় তাঁর পুরো টিমকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যবাসীকে একথা জানাতে পেরে তিনি অত্যন্ত আনন্দিত। সর্বভারতীয় স্তরেও স্বীকৃতি বাংলার দুই জেলার। সেরা কাজের শিরোপা পেয়ে প্রথম বাঁকুড়া, দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কোচবিহার। সেরা কাজের শিরোপা পেয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপির বাবুরমহল গ্রাম পঞ্চায়েতও।

গত ৪ বছর ধরেই একশো দিনের কাজে সেরার স্থান ধরে রাখতে পেরেছে পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্য সরকারের প্রতিটি দফতরের মিলিত প্রচেষ্টাতেই রাজ্যের এই সাফল্য বলে এর আগেও একাধিকবার জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সাফল্যের কৃতিত্বও তিনি জানিয়েছেন রাজ্য প্রশাসনের কর্তা ও সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মীদের। একই সঙ্গে রাজ্যের একাধিক দফতরে কাজে গতি আনতে একাধিক পদক্ষেপও করছে নবান্ন। নবান্ন থেকে প্রশাসনের তৃণমূলস্তর পর্যন্ত চলে মনিটরিং। এর সুফলও মিলেছে বিভিন্ন সময় আন্তর্জাতিক ও জাতীয় স্তরে স্বীকৃতি পেয়ে। নবান্ন থেকে ক্রমাগত যোগাযোগ রাখা হয় জেলাগুলির সঙ্গে। ভিডিও কনফারেন্স করেও যোগাযোগ রাখা হয় জেলা প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে। বিভিন্ন সময়ে জেলা সফরে যান স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীও। কাজ ধরে ধরে খতিয়ান নেন প্রশাসনিক কর্তাদের থেকে। রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগের জেরেই একশো দিনের কাজে সেরার স্বীকৃতি ধরে রাখা গিয়েছে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের।