কলকাতা: একদিকে চলছে পুজোর চুড়ান্ত প্রস্তুতি, অন্যদিকে বাড়ছে সংক্রমণ৷ কমছে সুস্থতার হার৷ উৎসবের পরে কি করোনা ঢেউ আছড়ে পড়বে এই বাংলায়৷ যা অতিমারী ডেকে আনতে পারে৷

চিন্তায় বাংলার মানুষ৷ শনিবারের রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনের বুলেটিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ৩,৮৬৫ জন৷ শুক্রবার ছিল ৩,৭৭১ জন৷ প্রতিদিনই প্রায় ১০০ জন করে বাড়ছে৷

এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে দু’দিন পর দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটা চার হাজার পেরিয়ে যাবে৷ শেষ কোথায় কেউ জানে না৷ এদিকে এই পর্যন্ত বাংলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৩ জন৷ গত ২৪ ঘন্টায় ৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ যার ফলে মোট মৃতের সংখ্যা প্রায় ৬ হাজার৷

তথ্য অনুযায়ী,৫ হাজার ৯৯২ জন৷ তবে মৃত্যু হার কমে ১.৮৯ শতাংশ৷ যা এক সময় ২ শতাংশের বেশি ছিল৷ এদিকে প্রতিদিনই বাড়ছে অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা৷ এদিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী,৩৩ হাজার ১২১ জন৷ শুক্রবার ছিল ৩২ হাজার ৫০০ জন৷ তুলনামূলক ৬২১ জন ৷ যা একদিনে নতুন রের্ডক৷

এক সময় অ্যাক্টিভ আক্রান্তের সংখ্যাটা কমতে কমতে ২৩ হাজারে নেমে এসেছিল৷ এদিনও নতুন আক্রান্তের তুলনায় সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা কম৷ একদিনে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,১৮৩ জন৷ শুক্রবার ছিল ৩,১৯৪ জন৷ সব মিলিয়ে সুস্থ হয়ে উঠার সংখ্যাটা ২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৯৪০ জন৷ সুস্থতার হার কমে ৮৭.৬৬ শতাংশ৷

শুক্রবার ছিল ৮৭.৭৩ শতাংশ৷ একদিনে যে ৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে কলকাতার ১৫ জন৷ উত্তর ২৪ পরগনার ১৫ জন৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার ৪ জন৷ হাওড়ার ৭ জন৷ হুগলি ৪ জন৷ পশ্চিম বর্ধমান ১ জন৷ পূর্ব মেদিনীপুর ৩ জন৷ পশ্চিম মেদিনীপুর ১ জন৷ নদিয়া ৪ জন৷ মালদা ২ জন৷ জলপাইগুড়ি ২ জন৷

দার্জিলিং ১ জন৷ আলিপুরদুয়ার ২ জন৷ যদিও বাংলায় একদিনে ৪৩ হাজার ৪২৮ টি নমুনা টেস্ট হয়েছে৷ শুক্রবার ছিল ৪৩ হাজার ৩৮১ টি৷ এই মূহুর্তে মোট টেস্টের সংখ্যা ৩৯ লক্ষ ৪৭ হাজার ৭৫০ টি৷ প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় টেস্টের সংখ্যা বেড়ে হল ৪৩,৮৬৪ জন৷

এই মুহূর্তে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে রাজ্যে ৯২ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা টেস্ট হচ্ছে৷ আরও ৪ টি ল্যাবরেটরি অপেক্ষায় রয়েছে৷ আশা করা যায় ওই ল্যাবরেটরিতে শীঘ্রই টেস্ট শুরু হবে৷ এদিন বাংলায় আরও একটি হাসপাতালে কোভিড শয্যা তৈরি করা হয়েছে৷

এর ফলে বাংলায় এই মূহুর্তে ৯৩ টি সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতালে আইসোলেশন শয্যা তৈরি করা হল৷

এর মধ্যে সরকারি ৩৮ টি হাসপাতাল ও ৫৫ টি বেসরকারি হাসপাতাল রয়েছে৷ হাসপাতালগুলিতে মোট কোভিড বেড রয়েছে ১২,৭৫১ টি৷ আইসিইউ শয্যা রয়েছে ১,২৪৩টি, ভেন্টিলেশন সুবিধা রয়েছে ৭৯০টি৷ কিন্তু সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার রয়েছে ৫৮২টি৷

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।