নয়াদিল্লি: এবার পালটা চাপের কৌশল গেরুয়া শিবিরের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে এবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে নালিশ জানাবেন বাংলার ১৮ বিজেপি সাংসদ। মূলত রাজ্যের বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলার অবনতির অভিযোগ নিয়েই রাষ্ট্রপতির দরবারে যাচ্ছেন বিজেপির ১৮ সাংসদ।

জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশেই পশ্চিমবঙ্গের ১৮ সাংসদ রাষ্ট্রপতির কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারে বিরুদ্ধে নালিশ জানাতে যাবেন। পরোক্ষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর চাপ সৃষ্টি করাই লক্ষ্য পদ্ম শিবিরের। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন তৈরি হওয়ার পর থেকেই কেন্দ্র বিরোধিতায় সুর চড়িয়েছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতিরও অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

একইসঙ্গে সিএএ ও এনআরসি বাতিলের দাবিতে একটানা আন্দোলন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনওমতেই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পশ্চিমবঙ্গে কার্যকর করবেন না বলে সাফ জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে এনপিআর-এর কাজও বন্ধ রেখেছেন তিনি।

দলনেত্রীর নির্দেশে সিএএ ও এনআরসি বাতিলের দাবিতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে আন্দেলন চালিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। ধর্মতলার রানি রাসমণি অ্যাভিনিউয়ে লাগাতার ধরনা কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে টিএমসিপি। নিয়ম করে সেই কর্মসূচিতে যাচ্ছেন তৃণমূলনেত্রী। তাঁরই নির্দেশ টিএমসিপির ধরনামঞ্চে প্রায়ই দেখা মিলছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতাদের। ছাত্র নেতাদের চাঙ্গা করতে ভাষণও দিচ্ছেন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

তৃণমূলের লাগাতার কেন্দ্র বিরোধিতায় বেজায় চটেছে গেরুয়া শিবির। উলটে মমতার বিরুদ্ধে তোষণের রাজনীতির অভিযোগ তুলে সরব রাজ্য বিজেপি। এবার মমতা সরকারের উপর চাপ আরও বাড়াতে তৈরি গেরুয়া শিবির। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ চলে। বেপরোয়াভাবে বাসে-ট্রেনে আগুন লাগিয়ে চলে ভাঙচুর।

একাধিক রেল স্টেশনেও ভাঙচুর হয়। বিজেপির অভিযোগ, হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি রাজ্য পুলিশ।এবার রাষ্ট্রপতিকেই সেই নালিশ জানাতে চলেছেন রাজ্যের বিজেপি সাংসদরা। রাজ্যে গণতন্ত্রিক পরিবেশ নেই বলে দাবি বিজেপির। সেই দাবির স্বপক্ষেই এবার রাষ্ট্রপতিকে তথ্য-ভিত্তিক একটি খসড়া দেবেন বিজেপি সাংসদরা।