স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেস ঘনিষ্ঠ পুলিশকর্তা এবং সরকারি আমলাদের তালিকা তৈরি করছে বিজেপি৷ তারা যদি আচরণের পরিবর্তন করেন তবে এ যাত্রায় বাঁচবেন৷ নয়তো আগামিদিনে ভয়ঙ্কর পরিণতি হবে৷ প্রকাশ্যেই রাজ্য বিজেপির এক শীর্ষস্থানীয় নেতা এই হুমকি দিয়েছেন৷

২৩ মে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর দেখা গিয়েছে, শাসকদল রাজ্যে ১২টি আসন হারিয়েছে৷ বিজেপি ১৮টি আসন জিতে নিয়েছে৷ এই ঘটনার পরই রাজ্যে একটি সার্বিক মতামত ছড়িয়ে পড়েছে – শাসক তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ করতে পারে বিজেপি৷ বিজেপির সাফল্য বা তৃণমূলের তুলনামূলক ব্যর্থতার আলোচনার ফাঁকেই রাস্তায় জোর আলোচনা, শাসক ঘনিষ্ঠ সরকারি আমলা বা পুলিশকর্তাদের ছেড়ে কথা বলবে না বিজেপি৷

রাস্তাঘাটের মুখোরোচক এই আলোচনাতেই শীলমোহর দিয়েছে বিজেপির জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা৷ রাহুলবাবু রাজ্যের অন্যতম নেতা এবং রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি৷ উত্তর কলকাতা লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন রাহুল৷ তবে জিততে পারেননি৷

রাহুল বুধবার বলেন, ‘‘একটা পরিষ্কার কথা তৃণমূল কংগ্রেসে গুণ্ডা-মস্তানদের বলতে চাই, যে সমস্ত তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের উস্কানিতে কাজ করছেন, তারা কতদিন বাইরে ঘুরে বেড়াতে পারবে সেটাই বড় প্রশ্নচিহ্নের (মুখে)৷ অতএব আপনার রক্ষাকর্তা তার (ওই নেতাদের) স্থান কোথায় হবে সে চিন্তা করুন৷ তারপর নিজের অবস্থান চিন্তা করুন৷’’

এরপরই পুলিশ-প্রশাসনকে বার্তা দেন রাহুল৷ তিনি বলেন, ‘‘ঠিক একই কথা পুলিশ প্রশাসনের ক্ষেত্রেও আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই৷ আমরা নাম নোট করতে শুরু করেছি৷ তালিকা তৈরি করতে শুরু করেছি৷ যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, অতীতে বিভিন্ন কেলেঙ্কারি আছে, সেই সমস্ত কেলেঙ্কারিগুলি নথিভুক্ত করতে শুরু করেছি৷ যদি আচার আচরণে পরিবর্তন আনতে পারেন তাহলে হয়তো এযাত্রায় বাঁচবেন৷ নয়তো আগামিদিনে ভয়ঙ্কর পরিণতি হবে৷’’

রাহুলের এই উক্তিতে হুমকির সুর শোনা গিয়েছে বলেই মনে করে রাজনৈতিক মহল৷ বিধানসভা নির্বাচনের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে প্রবল চাপে রাখতে চায় বিজেপি৷ বিজেপি নেতা মুকুল রায় দাবি করেছেন, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিরোধী দলেরও তকমা পাবে না তৃণমূল৷

লোকসভা নির্বাচনের আগে মুকুল বলেছিলেন তৃণমূল ২০টি আসনের বেশি পাবে না৷ মুরুলের ভবিষ্যতবাণী মেলেনি৷ কিন্তু তৃণমূল থেকে গিয়েছে ২২টি আসনেই৷ তৃণমূলে থেকেই যে কিছু নেতা বিজেপিকে সাহায্য করেছেন, তাও বলেছেন মুকুল৷ আপাতত মুকুল এবং বিজেপির এই হুমকিই শাসকদল এবং শাসকঘনিষ্ঠ অফিসারদের চিন্তার কারণ হতে পারে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল৷