রাজকোট: প্রথম সেশনে অটুট গত দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যানের প্রতিরোধ৷ চতুর্থ দিনের লাঞ্চে বাংলাকে রঞ্জি জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছে সুদীপ-ঋদ্ধির চওড়া ব্যাট৷

তিন দশক পর রঞ্জির খেতাব পুরনায় হাতে তুলতে বাংলার দরকার প্রাথমিকভাবে ৪২৬ রান৷ রাজকোটের নিস্প্রাণ পিচে সরাসরি ম্যাচের ফলাফল নির্ধারণ খাতায়-কলমে অসম্ভব না হলেও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে অত্যন্ত কঠিন দেখাচ্ছে৷ সুতরাং প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকার নিরিখে চ্যাম্পিয়ন নির্ধারিত হওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল৷

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত জুভেন্তাস তারকা

এই অবস্থায় প্রথম ইনিংসে সৌরাষ্ট্রের ৪২৫ রান টপকে যাওয়াই প্রধান লক্ষ্য বঙ্গ ব্রিগেডের৷ সেই লক্ষ্যে বাংলাকে যথাযথ এগিয়ে নিয়ে চলেছেন সুদীপ চট্টোপাধ্যায় ও ঋদ্ধিমান সাহা৷ তৃতীয় দিনের শেষে বাংলা তাদের প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ১৩৪ রান তুলেছিল৷ সুদীপ ৪৭ ও ঋদ্ধি ব্যক্তিগত ৪ রানে অপরাজিত ছিলেন৷ তার পর থেকে খেলতে নেমে গত দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনে যোগ করেন ৮৪ রান৷

আপাতত চতুর্থ দিনের লাঞ্চে বাংলা ৩ উইকেটের বিনিময়ে ২১৮ রান তুলেছে৷ ইতিমধ্যেই ব্যক্তিগত হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছেন দুই তারকা৷ সুদীপ ব্যাট করছেন ব্যক্তিগত ৭৭ রানে৷ ২১৭ বলের ইনিংসে তিনি ৭টি বাউন্ডারি মেরেছেন৷ ঋদ্ধিমান অপরাজিত রয়েছেন ৫৫ রান করে৷ ১৪৫ বলের ইনিংসে তিনি ৯টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন৷ প্রথম ইনিংসের নিরিখে সৌরাষ্ট্রের থেকে এখনও ২০৭ রানে পিছিয়ে রয়েছে বাংলা৷ হাতে রয়েছে ৭টি উইকেট৷

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্ক: বলে লালা লাগানোয় নিষেধাজ্ঞা টিম ইন্ডিয়ার

উল্লেখ্য, বাংলার হয়ে প্রথম ইনিংসে অভিষেককারী সুদীপ ঘরামি ২৬ রান করে আউট হয়েছেন৷ ক্যাপ্টেন অভিমন্যু ঈশ্বরন সাজঘরে ফিরেছেন ৯ রান করে৷ অভিজ্ঞ মনোজ তিওয়ারি আউট হয়েছেন ৩৫ রান করে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।