স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এক বছর আগে বেনফিশের পক্ষ থেকে চালু হওয়া ‘একুশে অন্নপূর্ণা’ প্রকল্পটি ইতিমধ্যে কলকাতায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে৷ এবার এই প্রকল্পটি জেলায় জেলায় চালু করার সিদ্ধান্ত নিল বেনফিশ৷ মাত্র ২১ টাকাতেই পাওয়া যাবে ভাত, ডাল, মাছ, সবজি সঙ্গে আবার স্যালাডও৷ সাধারণ মানুষদের কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই নয়া প্রকল্প৷

বেনফিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই প্রকল্পের সব পরিকল্পনা ঠিক থাকলে জেলাগুলিতে আগামী মাস থেকে চালু হবে ‘একুশে অন্নপূর্ণা’৷ বিভিন্ন অফিস চত্বরের হোটেলগুলিতে খাবারের দাম অনেকটাই বেশি৷ তাছাড়া খাবারের মানও ভাল হয় না৷ সেদিক থেকে বেনফিশের খাবারের দাম যেমন কম তেমনি এর মানও অনেক ভাল৷

এই ২১ টাকার থালিতে থাকবে ১০০ গ্রাম চালের ভাত, ৫০ গ্রাম ওজনের মাছের পিস, ৫০ থেকে ১০০ গ্রাম সবজি, ৫০ গ্রাম ডাল ও স্যালাড৷ বিভিন্ন জেলার একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রান্না করা হবে৷ পরে তা গাড়িতে করে বিভিন্ন অফিস চত্বরে নিয়ে যাওয়া হবে৷ মহিলা স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকেও এই কাজে যুক্ত করা হবে৷

রাজ্য মৎস্য দফতরের যুগ্ম সচিব তথা বেনফিশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর বিধান রায় বলেন, কলকাতাতে গত এক বছর ধরে চলা এই প্রকল্পে আমরা সাফল্য পেয়েছি৷ তাই বিভিন্ন রাজ্যগুলিতে এই প্রকল্প চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷ আমরা প্রথমে জেলা সদরে ও পরে মহকুমা সদরে এটি চালু করব৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।