বেজিংঃ নতুন করে ফের চিনে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। গবেষকরা বলছেন, বেজিংয়ে নাকি করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ শুরু হয়ে গিয়েছে, যার জেরে পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগজনক হিসেবে দেখা দিয়েছে বলেও মনে করছেন গবেষকরা। বিশেষ করে রাজধানী বেজিং এর অবস্থা যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলে জানিয়েছেন এক আধিকারিক। ফের চিনে নতুন করে ২৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর। যদিও অন্য একটি সূত্রে খবর, গত ২৪ ঘন্টায় নাকি ১০০ জনের বেশি আক্রান্ত হয়েছেন করোনার মারণ ভাইরাস।

যার কারণে সে শহরে বাসিন্দাদের মধ্যে ফের শুরু হয়েছে পরীক্ষা। নতুন করে ফের করোনা সংক্রমণের ফলে উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের।। বেজিংয়ে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ নাকি শিনফাদি বাজার থেকে ছড়িয়ে পরেছে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও আবার গবেষকরা বলছেন নাকি, সালমান মাছের কারণেই নতুন করে বেজিংয়ে করোনা ছড়াচ্ছে, তবে এর আগেই দীর্ঘ লক ডাউন ও টেস্টিং এর মধ্য দিয়ে রুখে দিয়েছিল এই ভাইরাস।

তবে ফের নতুন করে সংক্রমণ শুরু হওয়াতে আতঙ্কিত হতে শুরু করেছেন অনেকে। অনেকে এও মনে করছেন ফের ফিরছে ঘাতক করোনা। ইতিমধ্যে ওষুধ তৈরি করার কাজ শুরু করেছেন চিনের গবেষকরা। যদিও করোনার মারণ ভাইরাস সারিয়ে দিতে পারে, এমন কোনও ওষুধ তৈরি করতে পারেনি বেজিং।

জানা যাচ্ছে, গত পাঁচদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন শতাধিকেরও বেশি মানুষ। ইতিমধ্যে বেশ কয়েক জায়গাতে লক ডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি বেশ কিছু দোকান এবং কাছাকাছি স্কুল বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যে বাজার থেকে বেজিংয়ে করোনা ছড়িয়েছে বলে ভাবা হচ্ছে, রাতারাতি তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাশপাশি পরিস্থিতির দিকে প্রশাসনের তরফে নজর রাখা হচ্ছে।

জানা যাচ্ছে, প্রায় ১০ হাজারের কাছাকাছি মানুষের ইতিমধ্যে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। চিন প্রশাসনের এর মুখপাত্রের তরফে জানা গিয়েছে রাজধানী বেজিংয়ের পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগজনক। পাশপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফেও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। সতর্ক করে বলা হয়েছে যে, বেজিংয়ে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ মারাত্মক আকার নেবে। ফলে সতর্ক থাকার কথা বলা হয়েছে।

এছাড়াও জানা গিয়েছে খাবারের দোকান, রেস্টুরেন্টের কর্মীদের শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে জানা গিয়েছে বেজিং প্রশাসনের তরফে প্রায় ৯০ হাজার মানুষের পরীক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। যদিও তালিকাটা অনেক বড়।

ইতিমধ্যে বেশ কিছু ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সব ধরনের খেলাধুলা এবং বিনোদনের ক্ষেত্রেও আপাতত জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। পরিস্থিতির দিকে প্রশাসনের তরফে সম্পূর্ণ নজর রাখা হচ্ছে।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব