বেঙ্গালুরু: লোকসভা নির্বাচন একেবারে দোরগোড়ায়। এই সময় কর্ণাটকের দেবনগরীতে ফাটল বোমা। কার্যত স্পষ্ট হয়ে গেল কংগ্রেস ও জেডিএসের ভাঙন।

রবিবার কর্ণাটকের দেবনগরীতে ছলবারি মহাসভায় যোগ দিতে আসেন কর্ণাটকের উপ-মুখ্যমন্ত্রী জি পরমেশ্বর। র‍্যালিতে যোগ দিয়ে তিনি দাবি করে বসেন, দলিত শ্রেনীর মানুষ হবার কারণেই নাকি মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন নি তিনি। সোজা ভাবে বলতে গেলে হতে দেওয়া হয় নি। তিনি দাবি করেন, তাঁকে জোরপূর্বক মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। এই মন্তব্য স্বভাবতই লোকসভা নির্বাচনে আগুনে ঘি ঢালার কাজ করেছে।

জি পরমেশ্বর

এক সময় কর্ণাটকের জটের সরকার সমস্যায় পরেছিল নিজেদের মধ্যে মত বিরোধের কারণে। আজ আবার সেই সমস্যা নতুনভাবে মাথা চারা দিল।

দেবনগরীর র‍্যালিতে যোগ দিতে এসে পরমেশ্বর বলেন, ” দলিত শ্রেনীর মানুষ হবার কারণেই মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন নি তিনি। সোজা ভাবে বলতে গেলে হতে দেওয়া হয় নি তাঁকে। এমনকি জোরপূর্বক মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে।”

সম্প্রতি একটি বিবৃতিতে পরমেশ্বর বলেছেন, ” তাঁর মতো অনেক দলিত শ্রেনীর নেতারা মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন নি। বি বসাভালিংগাপ্পা, কে এইচ রঙ্গনাথ কলাবুরগি, মল্লিকারজুন খারগে এদের সকলেই মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন। কিন্তু হতে পারেন নি কারণ তারা দলিত শ্রেনীর।”

এদিন তিনি বলেন, ” তিনি আজ ছলবারি মহাসভায় যোগ দিতে এসেছিলেন কারণ তিনি তাঁর ওপর হওয়া অবিচারের বিরুদ্ধে আওয়াজ ওঠাতে চান এবং সম্প্রদায়ের সমর্থন চান। ডিওয়াইসিএম এই বিষয়টিকেই হাতিয়ার করেছে গ্রামীন কর্ণাটকের রামপানতে এখনও যে এই রকম অস্পৃশ্যতার বিষয়টি বিদ্যমান তা তুলে ধরে। মন্দির, মসজিদ , হোটেল, দোকান সব জায়গাতেই এই বিভাজন দৃষ্টিগোচর।”