শেখর দুবে, কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের মুখে বাজেটকে অন্যতম হাতিয়ার করবেন এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা একমত ছিলেন৷ হলও সেই রকমই ভোটের আগে সাধারণের জন্য কল্পতরু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ শুক্রবার চমক ছিল শুরু থেকেই৷ করদাতাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বাজেট শুরু হোক কিংবা ১৫ হাজারের কম মাসিক আয় করা শ্রমিকদের জন্য ৩০০০ টাকা পেনশন, সবেতেই ছিল ২০১৪ সালের মোদী ম্যাজিক৷

কৃষকদের মন জয় করতে বার্ষিক ৬০০০ হাজার টাকা সরাসরি তাদের অ্যাকাউন্টে(২ হেক্টরের কম জমি রয়েছে এমন কৃষকরা পাবেন এই সুবিধা৷)৷ এবং এই বাজেটের সবচেয়ে বড় চমক বোধহয় ৫ লক্ষ টাকা অবধি আয়কর ছাড়৷ যা মধ্যবিত্ত চাকুরীজীবীদের খুশি করবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ৷ এই বাজেট নিয়ে কী বলছেন রাজ্যের বাম, কংগ্রেস, তৃণমূল?

সিপিএমের রাজ্য শীর্ষ নেতা সুজন চক্রবর্তী মোদী সরকারের এই বাজেট নিয়ে বলেন, ‘‘লোকে বলছে ভোটের আগে কল্পতরু৷ ভোটের পরে শুধুই গরু৷’’ তিনি আরও বলেন এই বাজেট ভোটের আগে জনমোহিনী বাজেট কিন্তু এর পুরোটাই ফেকও৷ সাধারণ মানুষ এসব ধাপ্পাবাজী ধরে ফেলবে৷

তৃণমূলের বরিষ্ঠ নেতা সৌগত রায় বাজেট নিয়ে বক্তব্য, ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেটে নিয়ম না মেনে জোর করে পূর্ণাঙ্গ বাজেট করতে চেয়েছে কেন্দ্র সরকার৷ এটা কোনওভাবেই হওয়া উচিৎ ছিল না৷ চাষীদের বছরে ৬০০০ টাকা দেওয়ার যে কথা ঘোষণা করেছে ওরা সেটা আগের ইউনির্ভাসাল বেসিক ইনকাম স্কিমের (যেটা অরবিন্দ সুভ্রমনিয়াম ঘোষণা করেছিলেন) থেকেও খারাপ৷

মোদী সরকারের বাজেটকে কটাক্ষ করে প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি সৌমেন মিত্রের বক্তব্য, এর আগে রাহুল গান্ধী যখন বারবার কৃষ্ণ ঋণ মুকুবের কথা বলেছেন, নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন টাকা নেই৷ এখন ভোটের আগে টাকা চলে এল? বাজেটে যে এত কিছু প্রতিশ্রুতি দেওয়া হল ,তা এত টাকা আসবে কোথা থেকে?