নয়াদিল্লি: রাজনৈতিক বিভাজন যাই থাকুক না কেন কংগ্রেস এবং বিজেপি উভয়ের সমর্থন রয়েছে রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাসের ৷ ফলে আসন্ন নির্বাচনে কে জিতে নতুন সরকার গড়ছে তাতে কিছু যায় আসবে না তাঁর ৷ তিনি একজন আমলা হওয়ার সুবাদে কংগ্রেস এবং বিজেপি উভয়ের অধীনে প্রশাসন চালিয়েছেন৷ ফলে ২৩মে নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর তিনি তাঁর চেয়ারে থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে ৷

গত বছর রিজার্ভ ব্যাংকে কেন্দ্র করে যে ভাবে দেশজুড়ে বিতর্কে উত্তাল হয়েছিল তার সাপেক্ষে এমন কথায় অনেক লগ্নিকারী কিছুটা আশ্বস্ত হওয়া উচিত ৷ বেশ কিছু ইস্যুতে মোদী সরকারের সঙ্গে মত পার্থক্য হওয়ায় গত ডিসেম্বরে উর্জিত প্যাটেল গভর্নরের পদ থেকে পদত্যাগ করেন৷ তারপরে শক্তিকান্ত দাস রিজার্ভ ব্যাংকের দায়িত্ব নেন তিন বছরের মেয়াদে যা শেষ হওয়ার কথা ২০২১ সালের ডিসেম্বরে৷

প্রাক্তন সরকারি আধিকারিক অশোক চাওলা যিনি এক সময় শক্তিকান্ত দাসের সঙ্গে অর্থ মন্ত্রকে কাজ করেছেন তিনি জানিয়েছেন, দাস দুই সরকারের আমলেই দক্ষ ভাবেই কাজ করেছেন ফলে তিনি ওই পদে থাকবেন এবং মেয়াদ শেষ করবেন তার সম্ভাবনা প্রবল৷ রিজার্ভ ব্যাংকের শীর্ষকর্তা হওয়ার আগে শক্তিকান্ত দাস ছিলেন মোদী সরকারের অর্থ বিষয়ক সচিব এবং ২০১৬ সালের নভেম্বরে নোট বাতিলের সময় তিনিই ছিলেন সরকারি মুখ৷

আবার তিনি কংগ্রেস আমলে প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং অর্থমন্ত্রী চিদাম্বরণের সঙ্গে কাজ করেছেন বাজেট তৈরি সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে৷ যেহেতু তাঁর সঙ্গে চিদাম্বরমের সুসম্পর্ক আছে সেহেতু কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকারে তিনি আরামেই থাকবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন মোদী দলের সুব্রহ্মণ্যম স্বামী৷