নয়াদিল্লি: কাশ্মীর থেকে স্পেশাল স্টেটাস তুলে নেওয়ার পর থেকেই পাকিস্তান বিভিন্ন ধরনের কূটনৈতিক চাপ দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকেও ফিরিয়ে দিয়েছে তারা। ভারত থেকেও পাক রাষ্ট্রদূতকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কিন্তু কাশ্মীর নিয়ে যে পাকিস্তানের মাথাব্যথা থাকা উচিৎ নয়, সেটা মনে করিয়ে দিয়েছেন অনেকেই।

এবার এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন ইসলামিক সংস্কারক ইমাম মহম্মদ তওহিদি। পাকিস্তানকে কড়া ভাষায় বুঝিয়ে দিয়েছেন যে কাশ্মীরের উপর তাদের কোনও অধিকার নেই এবং থাকা উচিৎও নয়।

সম্প্রতি একটি ট্যুইট করেছেন তওহিদি। তিনি স্পষ্ট লিখেছেন, ‘কাশ্মীর কোনোদিনই পাকিস্তানের অংশ ছিল না আর ভবিষ্যতেও কাশ্মীর পাকিস্তানের অংশ হবে না।

শুধু তাই নয়, তিনি এও লিখেছেন যে কাশ্মীর ও পাকিস্তান দুটোই আদতে ভারতেরই অংশ। তিনি বলেছেন, ‘ভারত দেশটি ইসলামের থেকেও পুরনো। তাই ভারতকে যেন পাকিস্তান ছেড়ে দেয়। পাকিস্তানে সৎ হওয়ার বার্তাও দিয়েছেন তিনি।

তওহিদির ট্যুইটার হ্যান্ডেলে লিখেছেন, ‘ইমাম অফ পিস’ অর্থাৎ শান্তির বার্তাই প্রচার করে থাকেন তিনি। এর আগে তিনি যখন ভারতে এসেছিলেন, তখনও তিনি বলেছিলেন যে কাশ্মীর আসলে হিন্দুদেরই জায়গা ছিল, আর এই কাশ্মরর কখনই পাকিস্তানের অংশ ছিল না।

এদিকে, শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভি ভারতের জাতীয় পতাকাই তুলে ধরার আবেদন করেছেন৷ সেইসঙ্গে চাঁদ-তারা দেওয়া সবুজ পতাকা যারা ওড়াচ্ছে দেশে তাদের সঙ্গে ‘বিশ্বাসঘাতকদের’ তুলনা করেছেন।

 

একটি ভিডিওতে রিজভি বলেছেন, ‘ভারতের কট্টর মুসলমানদের স্থির করতে হবে তারা ভারতের পতাকাকে ভালোবাসবেন নাকি ইসলামিক পতাকাকে নিজেদের বাড়ি-ঘরের সামনে রাখবেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘চাঁদ-তারা দেওয়া পতাকা যারা ওড়াচ্ছেন তারা ভারতের মুসলমান নয়, তারা গদ্দার৷ ভারতে থাকতে হলে ভারতকে ভালোবাসতে হবে৷ ভারতের জাতীয় সংগীত গাইতে হবে৷ এই বিষয়ে রিজভি সুপ্রিম কোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেন৷ যেখানে দাবি করা হয়েছে, ভারতে চাঁদ-তারা দেওয়া পতাকা উত্তোলন করা যাবে না এবং এই নিয়ে শীঘ্রই কোনও সিদ্ধান্তের কথা প্রকাশ্যে আসবে৷’