মুম্বই: লোকসভা ভোটের আবহকে ব্যবহার করে বাণিজ্যিক মুনাফা লোটার ইচ্ছা ছিল স্টার ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের৷ তবে তাদের সেই পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিল বিসিসিআই৷

আরও পড়ুন: ক্যাপ্টেনের হাতে উদ্বোধন নাইট রাইডার্সের নতুন জার্সির

আইপিএলের সময় বিপুল সংখ্যক দর্শকদের কাছে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপণ পৌঁছে দিতে পারলে নিঃসন্দেহে লক্ষ্মী আসত সম্প্রচারকারী সংস্থার ভাঁড়ারে৷ সেই মর্মে স্টার ইন্ডিয়া আবেদনও জানায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছে৷ তবে বিসিসিআই ক্রিকেট ও রাজনীতিকে এক সূত্রে গেঁথে ফেলতে রাজি হয়নি৷ বোর্ড তাদের পুরনো অবস্থানে অনড় থেকে টেলিভিশন সম্প্রচারকারী সংস্থাকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, আইপিওএল চলার সময় স্টার স্পোর্টসের পর্দায় কোনও রকম রাজনৈতিক বিজ্ঞাপণ প্রচার করা যাবে না৷

আরও পড়ুন: ইউনিসকে পাকিস্তানের দ্রাবিড় বানাতে চায় পিসিবি

এন শ্রীনিবাসন বিসিসিআই সভাপতি থাকাকালীন হায়দরাবাদের স্টেডিয়ামে ওয়ান ডে ম্যাচ চলাকালীন রাজনৈতিক বিজ্ঞাপণ চোখে পড়ে বটে, তবে শ্রীনি জমানার অবসানে সেই ট্র্যাডিশনটাও তুলে দেয় ভারতীয় বোর্ড৷ মিডিয়া রাইটস অ্যাগ্রিমেন্টের ৮.৬ (বি) ধারায় বিসিসিআই স্পষ্ট উল্লেখ করে যে, বোর্ডের ব্যানারে কোনও আন্তর্জাতিক অথবা ঘরোয়া টুর্নামেন্ট চলার সময় রাজনৈতিক ও ধর্মীয় বিজ্ঞাপণ সম্প্রচার করা যাবে না৷

আরও পড়ুন: ধোনির পুজোয় হৈচৈ শুরু চেন্নাইয়ে, আইপিএল জ্বরে কাঁপছে দেশ

এই অবস্থায় স্টার স্পোর্টস লোকসভা ভোটের সময় বাড়তি আয়ের লক্ষ্যে বোর্ডের কাছে নিয়ম শিথিল করার আবেদন জানায়৷ সিওএ’র বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনাও হয়৷ শেষমেশ বিনোদ রাইরা নিজেদের অবস্থানে স্থির থাকার সিদ্ধান্ত নেয়৷ শুধু টেলিভিশনের পর্দাতেই নয়, বোর্ড চায়না ফ্র্যাঞ্চাইজিরাও সংশ্লিষ্ট ম্যাচ কেন্দ্রে কোনও রাজনৈতিক বিজ্ঞাপণ প্রচার করুক৷